১০০ বছরে পা ইস্টবেঙ্গলের! ঐতিহাসিক মুহূর্তে শুভেচ্ছা জানাতে ভুললেন না প্রধানমন্ত্রী

১০০ বছরে পা ইস্টবেঙ্গলের! ঐতিহাসিক মুহূর্তে শুভেচ্ছা জানাতে ভুললেন না প্রধানমন্ত্রী

আজবাংলা        ২০২০ সালটা শুরুই হয়েছে এক অন্য চিত্রে | সারা দেশজুড়ে চলছে করোনা ভাইরাসের জন্য মহামারী | তারফলে কোথাও কোনো ভাবেই কোন অনুষ্ঠান করা সম্ভব নয় | সংক্রমণের কথা মাথায় রেখেই সামাজিক দূরত্ব পালন করছেন সকলেই | এই পরিস্থিতির মধ্যেই একশো বছরে পা রাখল দেশের অন্যতম সেরা ক্লাব ইস্টবেঙ্গল | করোনা ভাইরাসের জেরে কোনও আড়ম্বর, বিশেষ আয়োজন ছাড়াই কেটে গেল ইস্টবেঙ্গলের ১০০ বছরের জন্মদিনের প্রহর | ক্লাবের সদস্যরাও  নিজেদের মধ্যে হইচই, আনন্দোত্সব করতে পারলেন না | 

অন্যদিকে এই পরিস্থিতে লাল-হলুদ সমর্থকরা মাস্ক বিলি করে, দুঃস্থ মেধাবি ছাত্র-ছাত্রীদের আর্থিক সাহায্য করে, সংবর্ধনা দিয়ে নিজেদের এই বিশেষ দিনটি পালন করলেন | তাদের এই বিশেষ দিনে তাদের ক্লাবকে শুভেচ্ছা জানাতে ভুললেন না প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী | ক্লাব, ফুটবলার ও সমর্থকদের আলাদা করে শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী | প্রধানমন্ত্রী নিজের টুইট করে সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন | তিনি টুইট করে লিখেছেন,  "ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের ১০০ বছর পূর্তিতে ক্লাবের ফুটবলার, সদস্য এবং অবশ্যই সমর্থকদের জন্য শুভকামনা রইল | এই শুভ মুহূর্ত ভারতীয় ক্রীড়াক্ষেত্র ও বাংলার ফুটবল ঐতিহ্যের জন্য একটি মাইলফলক | ইস্টবেঙ্গলের মশাল যেন চিরকাল এভাবেই ময়দানে আলো ছড়াতে থাকে !"

শুধু প্রধানমন্ত্রী নন একশো বছরের জন্মদিনে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবকে শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় | তিনিও টুইট করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সকলকে | তিনি লিখেছেন, "১০০ বছর ধরে, মাঠ কাঁপাচ্ছে যে দল, লাল-হলুদের ঝড়ের নাম ইস্ট বেঙ্গল |" শনিবার একশো বছরের জন্মদিনে ক্লাব তাঁবুতে লাল-হলুদ পতাকা উত্তোলন করে ইস্টবেঙ্গল দিবসের সূচনা করা হয়েছিল | সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন ফুটবলার, কোচ এবং ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস | পতাকা উত্তোলন করে  কেক কেটে শতবর্ষ উদযাপন করেন সকলে |