বড়সড় জঙ্গি হামলার হাত থেকে রক্ষা, সেনার প্রশংসা প্রধানমন্ত্রীর

বড়সড় জঙ্গি হামলার হাত থেকে রক্ষা, সেনার প্রশংসা প্রধানমন্ত্রীর

আজ বাংলা: ফের ভারতীয় সেনার প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুক্রবার তিনি টুইট করে বলেন, ভারতীয় সেনার তৎপরতায় ফের আরও একবার এড়ানো গেল বিপদ ৷ ২৬/১১ মতো বা তার থেকেও বড় নাশকতার ছক বানচাল করল নিরাপত্তারক্ষীরা ৷ 

টুইটে তিনি আরও একটি বিষয় স্পষ্ট করে দিয়েছেন যে পাকিস্তানের জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মহম্মদ ফের ভারতে নাশকতার ছক কষেছিল ৷ খবর পাওয়া গিয়েছে, যে জঙ্গিরা মুম্বইয়ে ২৬/১১-র হামলার ১২ বছর পূর্তি উপলক্ষে বড়সড় কোনও হামলার পরিকল্পনা ছিল তাদের ৷

তাই আপাতত চার জঙ্গিকে খতম করেও নিশ্চিন্ত হওয়া যাচ্ছে না ৷ নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও জোরদার করা হয়েছে ৷উল্লেখ্য, জম্মুতে জঙ্গিদের নাশকতার ছক বানচাল করে নিরাপত্তারক্ষীরা ৷ নাগরোটার বান টোপ প্লাজায় লুকিয়ে ছিল চার সন্ত্রাসবাদী ৷

আগে থেকেই খবর থাকায় বৃহস্পতিবার ভোর রাতে জঙ্গিদের তল্লাশিতে শুরু হয়েছিল নাকা চেকিং। সেই সময়ই আচমকা নিরাপত্তা বাহিনীর উপরে গুলি চালাতে শুরু করে লুকিয়ে থাকা জঙ্গিরা। তারা দ্রুত পালিয়ে সামনের জঙ্গলে ঢুকে পড়ে। এরপরই শুরু হয় গুলির লড়াই।

জানা গিয়েছে, এই জঙ্গিরা বাসে করে জম্মু থেকে কাশ্মীরের দিকে যাচ্ছিল। এর পর থেকে ওই এলাকার নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। জম্মু-শ্রীনগর জাতীয় সড়ক আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। শুরু হয়েছে তল্লাশি। জঙ্গিদের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে। 


নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে খতম হয় চার জঙ্গি ৷ সংঘর্ষে এক জওয়ান আহত হন ৷ হাইওয়ের টোল প্লাজায় এই গুলির লড়াইয়ের পর নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে ৷


এদিকে নিরাপত্তারক্ষীদের তৎপরতাতেই রোখা গিয়েছে এই নাশকতা বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ৷ তিনি ট্যুইটে লেখেন, ‘নিরাপত্তারক্ষীরা সাহসিকতার নিদর্শন রেখেছেন ৷ তাদের কাজের প্রতি নিষ্ঠাতেই এই সাফল্য ৷ 

চার জঙ্গির থেকে উদ্ধার হওয়া বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও বিস্ফোরকই প্রমাণ যে ফের আমাদের দেশে কত বড় নাশকতার ছক কষেছিল তারা ৷ বিপুল ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানিই ছিল তাদের উদ্দেশ্য ৷’