এবার আর নয় কোনো পরীক্ষা, কোভিড আক্রান্তকে খুঁজবে কুকুর!

এবার আর নয় কোনো পরীক্ষা, কোভিড আক্রান্তকে খুঁজবে কুকুর!
আজ বাংলা: এবার থেকে দরকার নেই আর কোনো সোয়াব টেস্ট বা অ্যান্টিবডি টেস্টের! কারোর শরীরে করোনা ভাইরাসের জীবাণু রয়েছে কিনা তা এ বার থেকে বলে দেবে কুকুর! হ্যাঁ শুনতে অবাক লাগলেও জার্মান পশু বিদ্যালয়ের একটি গবেষণার রিপোর্টে সেরকমই দাবি করা হয়েছে। করোনা রোগীদের শনাক্ত করার জন্য তাঁদের কাছে রয়েছে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সারমেয়র দল। রিপোর্ট বলছে, করোনাভাইরাসের রোগীদের শনাক্ত করার জন্য জার্মান সশস্ত্র বাহিনীর আটটি কুকুরকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। ভেটেরিনারি মেডিসিন হ্যানোভার বিশ্ববিদ্যালয় তাদের গবেষণায় দেখেছে, ওই প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ৮ কুকুরের সামনে ১০০০ জনকে লোককে দাঁড় করানো হয়েছিল। ৯৪% ক্ষেত্রে সঠিকভাবে করোনা রোগী শনাক্ত করেছে সারমেয়রা। ওই ১০০০ মানুষের সোয়াবের নমুনা শুঁকতে দেওয়া হয়েছিল কুকুরগুলিকে। সোয়াবগুলির নমুনার মধ্যে রাখা ছিল করোনা রোগীরও সোয়াবের নমুনা। একগাদা নমুনার মধ্যে থেকে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সঠিকভাবে করোনাভাইরাসের সোয়াবের নমুনাকে আলাদা ভাবে চিহ্নিতকে করে দিয়েছে কুকুরেরা। এই পাইলট প্রজেক্টের নেতৃত্বে থাকা অধ্যাপক জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর মেটাবলিজম সম্পূর্ণ আলাদা থাকে। কুকুর এই ফারাক শুঁখেই দুটোকে আলাদা করতে পারে। কুকুরদের শুঁকে কোনও কিছু বোঝার ক্ষমতা মানুষের থেকে ১০০০ গুণ বেশি। মানুষের ৫০ লাখ ঘ্রাণকোষ আছে। কুকুরের আছে ২২ কোটি। কুকুর প্রতি মিনিটে ৩০০ বার নিঃশ্বাস নিতে পারে। তার মানে তাদের ঘ্রাণকোষ সমানে তাদের নতুন গন্ধ সরবরাহ করে যাচ্ছে।