ভালোবেসে বিয়ে করতে বাধা? এই মন্ত্র জপ করলে সব বাধা কেটে যাবে

ভালোবেসে বিয়ে
ভালোবেসে বিয়ে

আজবাংলা ভালোবাসার সঙ্গীকে সারাজীবনের জন্য নিজের করে পেতে চাইলে হিন্দু শাস্ত্র মতে, মা দুর্গার নয়টি অবতারের ষষ্ট অবতার হলেন কাত্যায়নী। যাঁর পুজো নবরাত্রির ষষ্ট দিনে করা হয়ে থাকে। শাস্ত্রে এমনও দাবি করা হয়েছে যে, নিয়মিত কাত্যায়নীর পুজো করলে আমাদের চারপাশের খারাপ শক্তির প্রভাব অনেকটা কমে যায়, অশুভ কোনও ঘটনা ঘটার আশঙ্কাও কমে যায় এবং ভাগ্য সহায় হতে খুব একটা সময় লাগে না।আজকের দিনে ভালবাসার জন্য মনের মতো মানুষ পাওয়া বেশ কঠিন।

ভালবাসার মানে বোঝার পর থেকে বেশ কিছুটা সময় চাতক পাখির মতো অপেক্ষা করতে হয় মনের মানুষের জন্য। আর যদি সঠিক প্রেম হয়েও যায়, তাতেও অনেক সময় নানা দিক থেকে বাধা চলে আসে। যার ফলে হয়তো মনের মতো মানুষ পেয়েও বিবাহ করা সম্ভব হয় না। তাই বিবাহে বাধা কাটাতে মা কাত্যায়নী মন্ত্র জপ করা অত্যন্ত জরুরী। সকালে স্নান করে লাল বস্ত্র পরিধান করতে হবে। তারপর মায়ের মূর্তি বা ছবি লাল কাপড়ের ওপর স্থাপন করতে হবে, লাল ফুল ও চন্দন দিয়ে পুজো করলেই সকল বাধা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। এই দু’টি মন্ত্র নিয়মিত পাঠ করলে মনের মতো সঙ্গী পাওয়া যায় এবং বিবাহ সংক্রান্ত সব বাধা কেটে যায়। ১) ‘কাত্যায়নী মহামায়ে মহায়োগনিনাথেশ্বরী। নন্দোপুস্তম দেবীপাতিম মে কুরু তে নমহ।’ ২) ‘ওম হ্রিং কাত্যায়নী সোয়াহা।। হ্রিং শ্রিং কাত্যায়নী সোয়াহা।’ আর ভালোবাসার সঙ্গীকে সারাজীবনের জন্য নিজের করে পেতে চাইলে জপ করুন– ‘কেশবী কেশবরাধ্যা কিশোরী কেশববস্তুতা, রুদ্র রূপা রুদ্র মূর্তিঃ রুদ্রাণী রুদ্র দেবতা।’ মন্ত্র জপের সময় শ্রীকৃষ্ণকে স্মরণ করতে হবে। টানা ৩ মাস প্রতি শুক্রবারে রাধা-কৃষ্ণের মূর্তির সামনে ১০৮ বার এই মন্ত্র জপ করলে প্রেমজ বিবাহের যাবতীয় বাধা কেটে যায়।শুক্লপক্ষের বৃহস্পতিবার লক্ষ্মী-নারায়ণের মূর্তির সামনে বসে দিনে তিনবার স্ফটিকের জপমালা নিয়ে জপ করুন– ‘ওঁ লক্ষ্মী-নারায়ণ নমঃ’ মন্ত্র। এই মন্ত্র টানা তিন মাস প্রতি বৃহস্পতিবার জপ করতে হবে এবং শুক্লপক্ষের বৃহস্পতিবার থেকে জপ করা শুরু করতে হবে। একই সঙ্গে, মন্দিরে দেবতার উদ্দেশ্যে ফল নিবেদন করে প্রেমজ বিবাহের সাফল্যের জন্য প্রার্থনা করতে হবে। এতে বাধা-বিপত্তি দূর হবে।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!