ঘরোয়া উপায়ে চোখের নিচে ডার্ক সার্কাল তারান

ঘরোয়া উপায়ে চোখের নিচে ডার্ক সার্কাল তারান

আজবাংলা     পার্লারে গিয়ে নিজেকে সাজিয়ে তোলাটা একটু রিস্কেরই।সুন্দর করে নিজেকে সাজিয়ে তোলার পর যদি দেখেন চোখের কোনে ডার্ক সার্কেলটা বেশ বোঝা যাচ্ছে তালে মনটা সত্যিই খুব খারাপ হয়ে যায়! তাই  আগে বাড়িতেই  নিজেকে সাজিয়ে তুলুন।

চোখের অশ্রুনালির কাছে হালকা চাপ দিয়ে ম্যাসাজ করলে চোখের আর্দ্রতা বাড়ে এবং চোখের প্রশান্তি দেয়। চোখের পাতার ওপর মৃদুভাবে তিন আঙুল দিয়ে চক্রাকারে ম্যাসাজ করতে পারেন।

১০ বার ঘড়ির কাঁটার দিকে ও ১০ বার বিপরীত দিকে এ ম্যাসাজ করুন। চোখের দুই পাতার মাঝখানে তিনবার ম্যাসাজ করতে পারেন।

এমনকি আপনার তর্জনী আঙ্গুল একটু বাঁকা করে ভুরুর নিচের দিকে রাখুন। এবার একটু একটু করে আস্তে আস্তে উপড়ে দিকে তুলুন।

খেয়াল করুন ভুরু ও যাতে আস্তে আস্তে আস্তে উপড়ে উঠে। এবার চোখ বন্ধ করুন। চোখের যাতে প্রেসার পড়ে এমন ভাবে।

১০-১৫ সেকেন্ড রাখুন চোখ খুলে ফেলুন। এভাবে কয়েকবার করুন দিনে দুবার। এই ব্যায়াম করলে চোখের চারপাশের পেশি গুলো শক্ত হবে। এর ফলে চোখের ঝুলে পড়া ভাব ও ফোলা ফোলা ভাব কমে চোখ আকর্ষণীয় ও সুন্দর হয়ে ওঠে।

এছাড়াও কাঁচা আলু ঠাণ্ডা করে ব্লেন্ডারে পিষে পেস্ট তৈরি করুন। পেস্ট দাগের উপর মেখে ১০-১৫ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। আলু পেস্ট করতে ঝামেলা মনে হলে শসার মত স্লাইস করেও ব্যবহার করতে পারেন। সপ্তাহ জুড়ে দিনে ১-২ বার ব্যবহার করলেই চলবে।

আবার বাড়িতে যদি শসা থাকে তবে সেটিও ব্যবহার করতে পারেন। সতেজ শসা স্লাইস করে কেটে আধ ঘণ্টা ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করুন। দশ মিনিট চোখের উপর রেখে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

দিনে অন্তত দুবার, একটানা সাত দিন। আবার শসা আর লেবুর রস সমান পরিমাণ মিশিয়ে মাখতে পারেন ত্বকে। দিনে একবার করে সাত দিন মাখুন। স্বাভাবিক রং ফিরে আসবে।