পুরুলিয়ার পিকনিক স্পট গুলিতে দূষণের মোকাবিলায় পর্যটকদের জন্য একাধিক নির্দেশিকা জারি জেলা প্রশাসনের।

Purikia picnic spot, the district administration issued multiple
পিকনিক স্পট গুলিতে দূষণের মোকাবিলায় পর্যটকদের জন্য একাধিক নির্দেশিকা জারি

শান্তনু দাস,পুরুলিয়াঃ ভোরের কুয়াশা সঙ্গে মৃদ ঠাণ্ডা হাওয়া, আর এর মাঝেই যেন প্রকৃতির আঙিনায় এখন কড়া নাড়ছে শীত।হ্যাঁ আসছে শীতের মরশুম।আর শীতকাল মানেই পিকনিক।তবে এবছর পিকনিক করতে যাওয়ার আগে কিছু নির্দেশ অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে আপনাকে।নয়তো হতে পারে জরিমানা।একিসঙ্গে একাধিক ধারাতে আইনানুগ ব্যবস্থাও নেওয়া হতে পারে আপনার বিরুদ্ধে। হ্যাঁ রুপসী রুপা পুরুলিয়াকে দূষণের হাত থেকে বাঁচিয়ে তুলতে এবার পিকনিকে এমনই কড়া পদক্ষেপের সঙ্গে পথে নামছে পুরুলিয়া জেলা প্রশাসন।বুধবার দিন পুরুলিয়া জেলা শাসক অলোকেশ প্রসাদ রায় একটি বিজ্ঞাপ্তি জারি করে জানান, জেলার পিকনিক স্পট গুলিতে এবার নিয়ে যাওয়া যাবে না প্লাস্টিক বা থার্মোকলের থালা,বাটি ও গ্লাস।কেবল মাত্র শালপাতার তালা,বাটিই ব্যাবহার করা যেতে পারে।যদিও এতে অসুবিধার থেকে সুবিধাই হবে বেশি।কারণ থালা বয়ে নিয়ে যাওয়ার ঝামেলাটা আর থাকবে না।জেলার সব পিকনিক স্পটেই হাজির থাকবেন স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা।নায্যমূল্যে তাঁদের কাছেই পেয়ে যাবেন শালপাতার থালা,বাটি সঙ্গে গ্লাসও। একিসঙ্গে বিজ্ঞাপ্তিতে পর্যটকদের উদ্দেশ্যে জেলাশাসক আরও জানান, পিকনিক স্পটে কোনও রকম মাইক বক্স ও DJ – এর ব্যবহার করা যাবে না।এছাড়াও জলাধারে কোনও প্রকার নোংরা আবর্জনা ফেলা যাবে না।যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং না করে নির্দিষ্ট যায়গায় গাড়ি পার্কিং করতে হবে।কোনও প্রকার মাদক দ্রব্য ব্যবহার বা ধূমপান করা করা চলবে না।ব্যবহার করতে হবে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে তৈরি হওয়া শৌচাগার।একিসঙ্গে পিকনিক করার জন্য জেলা প্রশাসন এবার পর্যটকদের নির্দিষ্ট সময় সীমাও বেঁধে দিয়েছে।সকাল ৬ টা থেকে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত।সন্ধ্যা ৭ টার পর নির্দিষ্ট গন্তব্যস্থলে রওনা দিতে হবে। আর এই সমস্ত নির্দেশিকা অমান্য করলেই পর্যটকদের বিরুদ্ধে কড়া হাতে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতেও বাধ্য হবে এবার পুরুলিয়া জেলা প্রশাসন বলে জানান জেলা শাসক অলোকেশ প্রসাদ রায়।তিনি জানান,এই সমস্ত নির্দেশিকা অমান্য করলে পর্যটকদের বিরুদ্ধে “IPC 188” , “Solid Waste Management Rule – 2016”, “Plastic Waste Management Rule – 2018” এই সমস্ত ধারা মোতাবেক প্রশাসনের পক্ষ থেকে আর্থিক জরিমানা ও আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।