ভারতের হাতে রাফাল, পরমাণু আতঙ্কে ঘুম উড়ল পাকিস্তানের

ভারতের হাতে রাফাল, পরমাণু আতঙ্কে ঘুম উড়ল পাকিস্তানের
আজ বাংলা: দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর ভারত এসে পৌঁছেছে রাফাল। তবে এদিকে আতঙ্কে ঘুম উড়েছে পাকিস্তানের। পাশাপাশি বেজায় চিন্তিত চিন। ২৯ জুলাই অর্থাৎ ফ্রান্স থেকে মোট ৫টি রাফাল যুদ্ধবিমান ভারতে এসে পৌঁছেছে। এই ঘটনায় ভারতের অন্য প্রতিবেশী দেশগুলো কোনও প্রতিক্রিয়া না দিলেও পাকিস্তান প্রমাদ গুনছে। যদিও লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা সৃষ্টিকারী চিন এখনও এবিষয়ে টুঁশব্দও করেনি। কিন্তু পাকিস্তান রাফাল নিয়ে এতটাই বিচলিত যে তারা ভারতের 3 ফোরামে দেওয়া প্রতিশ্রুতিকেও স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে। একথা সকলেই মানবে যে, রাফাল যুদ্ধবিমানগুলো যে পরিমাণ 9গত শক্তির অধিকারী তার মোকাবিলা করার জন্য এই মুহূর্তে অন্তত চিন বা পাকিস্তান, কারও কাছেই যোগ্য জবাব নেই। এ জাতীয় বিমান নেই তাতে সন্দেহ নেই। লাদাখ আর সিয়াচেন, যার উপর চিন ও পাকিস্তানের সর্বদা লোলুপ দৃষ্টি রয়েছে, সেখানে রাফাল বিমান মোতায়েন করে দুই দেশকে জোরালো বার্তাও দিতে পারে ভারত। এদেশের প্রয়োজন বিবেচনা করে ফ্রান্স খুব কম সময়ের মধ্যেই ৫টি যুদ্ধ বিমান ভারতকে সরবরাহ করেছে। মোট ৩৬ টি রাফাল কেনার চুক্তি হয়েছে, যার মোট মূল্য প্রায় ৬০ হাজার কোটি টাকার কাছাকাছি। অন্যদিকে এই রকম যোগদান ইস্যুতে সম্প্রতি নিজেদের মতামত ব্যক্ত করেছে পাকিস্তান। স্বদেশের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র আয়েশা ফারুকী জানান, সম্প্রতি ভারতীয় বাইসনের রাফাল যোগদানের বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন পাকিস্তান। ভারত যেভাবে নিজেদের সুরক্ষার থেকে অতিরিক্ত সমরাস্ত্র সজ্জা করছে তা যথেষ্ট আশঙ্কাজনক। পাশাপাশি তিনি এও বলেন যে রাফাল বিমান থেকে এয়ার টু এয়ার মিসাইল সিস্টেম শক্তিশালী হওয়ায় আগামী দিনে ভারতের পক্ষ থেকে পরমাণু নিক্ষেপের সম্ভাবনা রয়েছে, এমন আশঙ্কা উড়িয়ে দেননি তিনি।