রেল লাইনের ওপর দিয়ে ট্রেন নয়, চলছে বাইসাইকেল! ভাইরাল

রেল লাইনের ওপর দিয়ে ট্রেন নয়, চলছে বাইসাইকেল! ভাইরাল
আজ বাংলা: রেললাইনের উপর দিয়ে ট্রেন নয়,  চলছে বাইসাইকেল । আর তাতে সওয়ার রয়েছেন দুজন ব্যক্তি।  তবে সাধারণ যাত্রীদের জন্য এই ব্যবস্থা নয়। লাইনের উপর দিয়ে সাইকেল চালিয়ে যাচ্ছেন ট্রাকম্যানরা। ঘটনাস্থল আজমের। এখানকার এক রেলের সহকারী ইঞ্জিনিয়ার অতি সহজ পদ্ধতিতে তৈরি করেছেন এই অভিনব দু-চাকার যান। সাধারণ বাইসাইকেলে কিছু ধাতব রড জুড়ে তাকে লাইনের উপর দিয়ে চলার যোগ্য করে তোলা হয়েছে। লকডাউনে চলাচল বন্ধ, তবে এই সাইকেল চালিয়ে তরতরিয়ে রেললাইনের উপর দিয়ে চলে যাওয়া যাবে অনেকটা রাস্তা। বাইসাইকেলের সামনের চাকায় ভারসাম্যের জন্য দুটি রড সামনে এগিয়ে দিয়ে একটি ছোট ধাতব চাকায় যুক্ত হয়েছে। যা লাইনের উপর সাইকেলকে বসিয়ে রাখার উপযুক্ত করেছে। সামনের ও পিছনের চাকার সঙ্গে যুক্ত দুটি রড পাশের লাইন বরাবর গিয়ে যুক্ত হয়েছে একটি ধাতব চাকার উপর। যা সাইকেলকে ভারসাম্য রেখে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে। অভিনব এই বাই সাইকেলে চড়ে লাইনের উপর দিয়ে দৌড়তে শুরু করেছেন ট্রাকম্যানরা। বিশেষত বর্ষাকালে লাইনে ফাটল ধরলে, নদীর জল বিপদসীমায় উঠে এলে তাড়াতাড়ি ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিপদ সংকেত দিতে এই যান খুবই কার্যকরী। আপদকালীন পরিস্থিতিতে এই সাইকেল বহু কাজ দেবে বলে মনে করেছেন রেলের ইঞ্জিনিয়াররা। রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘণ্টায় দশ থেকে পনেরো কিলোমিটার বেগে চলতে পারবে এই বাইসাইকেল। সর্বোচ্চ ওজন ২০ কেজির কাছাকাছি। খরচ পড়বে ৫ হাজার টাকারও কম। রেল ট্র্যাক ইনস্পেকশনের জন্য এখনও ট্রলি ব্যবহার করা হয় বহু জায়গায়। সেই ট্রলি ঠেলতে দু’জন লোক লাগে। এবার তা লাগবে না। কারণ, নতুন তৈরি সাইকেলে দু’জন অনায়াসে চড়তে পারবেন। ঠিক যেভাবে সাইকেলে ডবল ক্যারি  করা হয়। করোনা পরিস্থিতিতে এই সাইকেল খুব জরুরি বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ, বহু জায়গায় ট্রেন চলছে না। অথচ লাইনে নানা কাজ হচ্ছে। রেলের ওয়ার্কশপগুলিতে সাইকেলে এই রড লাগানোর কাজ শুরু হয়েছে।