ফিরহাদ হাকিমের বাড়িতে রত্না চট্টোপাধ্যায়। স্বামী’কে সার্টিফিকেট রত্না চট্টোপাধ্যায়ের।

শোভন চট্টোপাধ্যায়/ রত্না চট্টোপাধ্যায়।
শোভন চট্টোপাধ্যায়/ রত্না চট্টোপাধ্যায়।

আজবাংলা  শোভন চট্টোপাধ্যায়ের অসমাপ্ত কাজগুলি নতুন মেয়রকে পূরণে আর্জিও জানালেন রত্না চট্টোপাধ্যায়। নতুন মেয়রকে শুভেচ্ছা জানতে ফিরহাদ হাকিমের বাড়িতে গেলেন রত্না চট্টোপাধ্যায়। আজ, শুক্রবার সকালে ভাবী মেয়রের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ কথা বলেন রত্নাদেবী।  শোভন চট্টোপাধ্যায়ের আমলে কলকাতা পুরসভায় সব থেকে বেশি উন্নয়ন হয়ে হয়েছে বলেও ‘স্বামী’কে সার্টিফিকেটও দেন রত্না চট্টোপাধ্যায়। পুরসভার প্রয়োজনে যে কোনও কাজে তিনি সর্বসম্মতভাবে ভাবী মেয়রকে সহযোগিতা করবেন বলেও এদিন জানিয়ে আসেন রত্না। ফিরহাদের বাড়ি থেকে বেরিয়ে রত্নাদেবী সংবাদমাধ্যমে বলেন, ”কলকাতা শহরের উন্নয়নে শোভন অনেক কাজ করেছেন। আশা করি শোভনের অসম্পূর্ণ কাজ শেষ করবেন ফিরহাদ।” প্রসঙ্গত, কলকাতার নতুন মহানাগরিক হচ্ছেন ফিরহাদ হাকিম। নতুন ডেপুটি মেয়রও পাচ্ছে মহানগরী। তিনি অতীন ঘোষ। বৃহস্পতিবার উত্তীর্ণ অডিটোরিয়ামে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে কলকাতা পুরসভার ১২২ জন তৃণমূল কাউন্সিলর সর্বসম্মতিক্রমে তাঁদের মেয়র ও ডেপুটি মেয়রের নাম চূড়ান্ত করেন। এর আগে দলের নির্দেশমতো মেয়র পদে ইস্তফাপত্র পুরসভার চেয়ারম্যান মালা রায়ের কাছে পাঠিয়ে দেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। তবে কাউন্সিলর নন নতুন মহানাগরিক ফিরহাদ হাকিম। ফলে তাঁর মেয়র পদে বসা আইনগতভাবে সুনিশ্চিত করতে ইতিমধ্যেই পুর আইনের সংশোধনী বিল বিধানসভায় গৃহীত হয়েছে। ছ’মাসের মধ্যে তাঁকে কলকাতার ১৪৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে কোনও একটি থেকে নির্বাচিত হয়ে আসতে হবে। কলকাতা পুরসভার সুদীর্ঘ ইতিহাসে স্বাধীনতার পর ফিরহাদই প্রথম সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায় থেকে মেয়র।