করোনার ভ্যাকসিন তৈরিতে সবার আগে বাজিমাত রাশিয়ার

করোনার ভ্যাকসিন তৈরিতে সবার আগে বাজিমাত রাশিয়ার
আজবাংলা    করোনার ভ্যাকসিন প্রথম কোন দেশ তৈরি করবে, তা নিয়ে জোর চর্চা চলছিল৷ এর মধ্যেই রাশিয়ার সেকেনভ বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবি, তাদের তৈরি ভ্যাকসিনের মানব দেহে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ইতিমধ্যেই শেষ হয়ে গিয়েছে৷ভ্যাকসিনের পরীক্ষার ফল যথেষ্ট ইতিবাচক বলেও দাবি করা হয়েছে৷ তাদের তৈরি ভ্যাকসিনের মানব দেহে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ইতিমধ্যেই শেষ হয়ে গিয়েছে৷ ভ্যাকসিনের পরীক্ষার ফল যথেষ্ট ইতিবাচক বলেও দাবি করা হয়েছে৷ওই ভ্যাকসিন তৈরির সঙ্গে যুক্ত গবেষক দলের প্রধান ইলেনা স্মোলিয়ারচুকের দাবি, যাঁদের উপরে পরীক্ষামূলকভাবে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছিল, তাঁরা সুস্থই রয়েছেন এবং খুব শিগগিরই ছাড়া পাবেন৷স্মোলিয়ারচুক আরও জানিয়েছেন, ‘গবেষণা সম্পূর্ণ হয়েছে এবং এটা প্রমাণিত যে এই ভ্যাকসিনটি নিরাপদ৷ যাঁদের উপরে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছিল তাঁদের ১৫ এবং ২০ জুলাই দু’টি ধাপে ছেড়ে দেওয়া হবে৷’ ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শেষ হলেও কবে থেকে এই ভ্যাকসিনের বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হতে পারে, সে বিষয়ে এখনও কিছুই জানা যায়নি৷উল্লেখ্য, সেকেনভ বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৮ জন এবং ২০ জনের দু’টি দলের উপরে এই ভ্যাকসিনটি পরীক্ষামূলক ভাবে প্রয়োগ করা হয়েছিল৷ ভ্যাকসিন প্রয়োগের পর স্বেচ্ছাসেবকদের ২৮ দিন আইসোলেশনে থাকার কথা৷এর আগেও রাশিয়ায় কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবকের উপরে ভ্যাকসিন প্রয়োগের ফলে ইতিবাচক এসেছিল৷ দেখা গিয়েছিল, যাঁদের শরীরে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছে, তাঁদের মধ্যে করোনার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেকটাই বেড়েছে৷