ভারতে সর্বাধিক ব্যবহৃত দ্বিতীয় ভাষা বাংলা।

Bangla
বাংলা

আজবাংলা  দক্ষিণ এশিয়ার বঙ্গ অঞ্চলের স্থানীয় ভাষা (স্বাধীন রাষ্ট্র বাংলাদেশ, ভারতের অঙ্গরাজ্য: বাংলা, ত্রিপুরা, অাসাম এর বরাক উপত্যকা, ঝাড়খন্ড এর কিছু অংশ এবং আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপু্ঞ্জ) সমগ্র অঞ্চলের মানুষ বাংলা ভাষায় কথা বলে। ১২৫ কোটি মানুষের দেশ ভারতে এখন সর্বাধিক ব্যবহৃত ভাষা হচ্ছে হিন্দি। আর দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বাংলা ভাষা। ভারতে হিন্দি ভাষায় কথা বলছে ৪৩ দশমিক ৬৩ শতাংশ মানুষ। তাদের মাতৃভাষাই হলো হিন্দি। আর বাংলা ভাষায় কথা বলছে ৮ দশমিক ৩৪ শতাংশ মানুষ। প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, এত দিন তৃতীয় স্থানে ছিল তেলেগু ভাষা, সেটা নেমে চতুর্থ স্থানে চলে এসেছে।

এই ধরনের আরো খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পাতায় লাইক করুন facebook

facebook
আমাদের ফেসবুক পাতায় লাইক করুন

আর তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে মারাঠি ভাষা। মারাঠি ভাষায় কথা বলে ৬ দশমিক ৯৯ শতাংশ মানুষ। তবে ২০১১ সালে এই সংখ্যা ছিল ৭ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ। তখন হিন্দিভাষী মানুষের সংখ্যা ছিল ৪১ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ। পঞ্চম স্থানে চলে এসেছে তামিল ভাষা এবং ষষ্ঠ স্থানে গুজরাটি ভাষা। বিশ্বের সর্বাধিক প্রচলিত ভাষাগুলির মধ্যে চতুর্থ স্থানে আছে বাংলা। ভারতে উর্দু ভাষা ষষ্ঠ থেকে নেমে সপ্তম স্থানে চলে এসেছে।  ইংরেজি মাতৃভাষা হলো ২ লাখ ৬০ হাজার মানুষের। তাদের মধ্যে ১ লাখ ৬ হাজার মানুষের বাস মহারাষ্ট্র রাজ্যে। সরকারি তালিকাভুক্ত ২৩টি ভাষায় কথা বলে ৯৬ দশমিক ৭১ শতাংশ মানুষ। আর বাকি ৩ দশমিক ২৯ শতাংশ মানুষ কথা বলে অন্যান্য ভাষায়। ১৯৭১ সালের হিসাব অনুসারে  ১ হাজার ৬৫২টি ভাষা রয়েছে। এর মধ্যে সরকারি তালিকাভুক্ত ভাষা হিসাবে স্বীকৃত হয়েছে ২৩টি। মাত্র ২৪ হাজার ৮২১ জন মানুষ সংস্কৃত ভাষায় কথা বলে। ব্যবহারকারীর নিরিখে সংস্কৃত ভাষা ভারতের বোরো, মণিপুরী, কোঙ্কানি ও ডোংরি ভাষায় কথা বলা মানুষের সংখ্যার চেয়েও কম। বাংলা ও এর বিভিন্ন উপভাষা বাংলাদেশের প্রধান ভাষা এবং ভারতে দ্বিতীয় সর্বাধিক প্রচলিত ভাষা। ২০১১ খ্রী: সেপ্টেম্বর হতে ঝাড়খণ্ডের দ্বিতীয় সরকারী ভাষা হিসাবে বাংলা স্বকৃতি লাভ করে। পাকিস্তানের করাচী শহরের দ্বিতীয় সরকারী ভাষা হিসাবেও বাংলাকে গ্রহণ করা হয়েছে। দশম থেকে দ্বাদশ শতাব্দীর মধ্যবর্তী সময়কালে মাগধী প্রাকৃত ও পালির মতো পূর্ব মধ্য ইন্দো-আর্য ভাষাসমূহ থেকে বাংলা ভাষার উদ্ভব ঘটে। শ্রী চৈতন্য মহাপ্রভুর যুগে ও বাংলার নবজাগরণের সময় বাংলা সাহিত্য ‘সংস্কৃত’ ভাষা দ্বারা অত্যন্ত প্রভাবিত হয়েছিল। ঊনবিংশ ও বিংশ শতাব্দীতে নদিয়া অঞ্চলে প্রচলিত পশ্চিম-মধ্য বাংলা কথ্য ভাষার ওপর ভিত্তি করে আধুনিক বাংলা সাহিত্য গড়ে ওঠে। বিভিন্ন আঞ্চলিক কথ্য বাংলা ভাষা ও আধুনিক বাংলা সাহিত্যে ব্যবহৃত ভাষার মধে অনেকখানি পার্থক্য রয়েছে। আধুনিক বাংলা শব্দভাণ্ডারে মাগধী প্রাকৃত, পালি, সংস্কৃত, ফার্সি, আরবি ভাষা এবং অস্ট্রোএশিয়াটিক ভাষা সমূহ সহ অন্যান্য ভাষা পরিবারের শব্দ স্থান পেয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এসআইএল ইন্টারন্যাশনালের তথ্য ব্যবহার করে তৈরি ‘ইথনোলগ’-এর প্রতিবেদনের তথ্য তুলে ধরে উইকিপিডিয়ার ২০১৭ সংস্করণে বলা হয়েছে, ভাষাভাষীর বিবেচনায় বিশ্বে বাংলা অষ্টম বৃহত্তম ভাষা। তবে মূল ভাষা হিসেবে ব্যবহারকারীর সংখ্যা বিবেচনায় বাংলার অবস্থান বিশ্বে ষষ্ঠ। ২৪ কোটি ২০ লাখ মানুষ বাংলাকে মূল (প্রথম) ভাষা হিসেবে ব্যবহার করে। ২০১১ সালের হিসাবে দ্বিতীয় ভাষা হিসেবে বাংলা ব্যবহার করে এমন মানুষের সংখ্যা এক কোটি ৯০ লাখ।