শুক্রবারও কমল সোনা ও রুপোর দাম

শুক্রবারও কমল সোনা ও রুপোর দাম

আজ বাংলা: আজ শুক্রবার। এদিনও সামান্য কমল সোনালি ধাতুর দাম। জানা গিয়েছে, ভারতের ঘরোয়া বাজারে এদিন কার্যত সোনার দাম ক্রমাগত অস্থিরতার মধ্যে দিয়ে গিয়েছে। মাল্টি কমোডিটি এক্সচেঞ্জে দামের গতি একটু চাঙ্গা হলেও , পর পর ৫দিন সোনার দাম সেভাবে উন্নতি দেখা যায়নি। 

এদিন সোনার দাম ১০ গ্রামে ০. ১১ শতাংশ মাল্টি কমোডিটি এক্সচেঞ্জে বাড়লেও, তা সেভাবে সোনার দামের ট্রেন্ডকে চাঙ্গা করেনি। এদিন ২০ নভেম্বর সোনার দাম ১০ গ্রামে ৫০, ০২৯ টাকা হয়েছে। এছাড়া এদিন রুপোর দাম বেড়েছে।

তবে সেভাবে উত্থান প্রভাব ফেলেনি ভারতের বাজারে। রুপোর দাম এদিন ০. ৩ শতাংশ বেড়েছে । ফলে ১ কেজি রুপোর দাম ৬১৬৯০ টাকা হয়েছে। অন্যদিকে সোনার দাম এদিন ২২ ক্যারেটে কলকাতায় রয়েছে ৫০, ০৫০ টাকা। বিয়ের মরশুমের আগে ২৪ ক্যারেটে সোনার দাম ৫২, ৪৫০ টাকা রয়েছে কল্লোলিনী তিলোত্তমায়।

এর পাশাপাশি এদিন সোনার দাম ২২ ক্যারেটে চেন্নাইতে রয়েছে ৪৭, ৪৫০ টাকা। ২৪ ক্যারেটে রেছে ৫১, ৮৩০ টাকা। মুম্বইতে সোনার দাম ২২ ক্যারেটে ৪৯, ৮৩০ টাকা। ২৪ ক্যারেটে সোনার দাম ৫০৮৩০ টাকা। দিল্লিতে ২২ ক্যারেটে সোনার দাম ৪৯, ৩৭০ টাকা, ২৪ ক্যারেটে সোনার দাম ৫৩, ৮৫০ টাকা।

জানা গিয়েছে, বাণিজ্য ঘাটতি নিয়ন্ত্রণে মোদী সরকার সোনা আমদানিতে অতিরিক্ত শুল্ক চাপানোর পর থেকে দামের ভারে এদেশে সোনার গয়নার বিক্রিতে ভাটার টান শুরু হয়। তবুও অল্প হলেও বিক্রি চলছিল। কিন্তু করোনা মহামারি, লকডাউন এবং তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বৃদ্ধি পাওয়া দামের কারণে সোনা ক্রমশ মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে। 

সোনার মূল্যবৃদ্ধির নেপথ্যে অবদান লগ্নিকারীদের। লগ্নির নিরাপদ আশ্রয় হিসেবে এই ধাতুর চাহিদা যত বাড়ছে ততই বাড়ছে দাম। গত অগস্টে তা শিখর স্পর্শ করার পরে সামান্য কমেছিল।