সৌরভের অনেকদিনের সেই স্বপ্নের প্রজেক্ট ছবি শেয়ার করলেন খোদ দাদাই

আজবাংলা    সিএবিতে সচিব পদে আসার পর থেকে ক্রিকেটারদের ভালো অনুশীলন করার জন্য খোলনলচে বদলে ফেরার সিদ্ধান্ত নেন মহারাজ। সেনার অনুমতি পেতে প্রথমে কিছুটা বিলম্ব হয়। সৌরভ প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন সিএবি পঙ্কজ গুপ্ত ইন্ডোর স্টেডিয়ামকে ঢেলে সাজানোর কাজ শুরু হয়। অনুশীলনের জন্য আধুনিক স্মার্ট লেন থেকে জিম। সুমিংপুল থেকে ড্রেসিংরুম। পুরোনো ইন্ডোর স্টেডিয়ামের কাঠামো ভেঙে নতুন করে গড়া শুরু হয় আধুনিক বিল্ডিং। ঐতিহাসিক পিঙ্ক বল টেস্টের আগে আধুনিক ইন্ডোর উদ্বোধন করতে চেয়েছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। কিন্তু জিম তৈরি হয়ে গেলেও কাজ শেষ করা সম্ভব হয়নি। অনুশীলনের জন্য স্মার্ট লেন শুরু করা সম্ভব হয়নি। সেই সময় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় তাড়াহুড়ো না করে ধীরে সুস্থে কাজ শেষ করে নতুন বছরে উদ্বোধন করা হবে ইন্ডোর স্টেডিয়াম। ১৮ মার্চ ইডেনে ভারত- দক্ষিণ আফ্রিকা একদিনের ম্যাচের আগে এই স্টেডিয়াম উদ্বোধন হওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে করোনা আতঙ্কের জেরে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা একদিনের সিরিজ বাতিল হওয়ার পর নতুন ইন্ডোর কবে উদ্বোধন হবে সেটা নিয়ে এখন কিছু ঠিক করতে পারেনি সিএবি।যে সংস্থা লর্ডসের ইন্ডোর সাজিয়ে তুলেছিল, তারাই ইডেনের ইন্ডোর গড়ে তুলতে সাহায্য করছে। আগে তিনটি নেটের ব্যবস্থা ছিল। এখন তা বেড়ে হবে চারটি। প্রত্যেকটিই ‘স্মার্ট লেন’। অর্থাৎ ব্যাটিং বোলিংয়ের পাশাপাশি কোথায় কী ভুল হচ্ছে, তা জেনে নেওয়ার সুবিধা থাকছে প্রত্যেকের জন্য। চারটি নেটের মধ্যে প্রতিটিতে ২৫ রকমের বিশ্লেষণ পাবেন ক্রিকেটারেরা।যেমন বোলার বল করার পরেই স্ক্রিনে দেখতে পাবেন কোথায় ভুল ত্রুটি হচ্ছে। ব্যাটসম্যানও দেখতে পাবেন তাঁদের ব্যাট স্পিড কতটা। ঠিক জায়গা থেকে তিনি ব্যাট নামাতে পারছেন না কি না। টেকনিক্যালি কোথায় ভুল হচ্ছে ।এককথায় ক্রিকেটাররা উপকৃত হবেন। এই ধরনের অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে নিজেদের আরও দ্রুত গড়ে তোলার সুযোগ পাবেন বাংলার ক্রিকেটারেরা।