সংক্রমণের আশঙ্কাকে দূরে রাখতে বাজারে এল 'স্যানিটাইজার পেন'!

সংক্রমণের আশঙ্কাকে দূরে রাখতে বাজারে এল 'স্যানিটাইজার পেন'!
আজ বাংলা: করোনা মহামারীর জেরে প্রাণহানি অব্যাহত দেশে। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ ও আক্রান্তের সংখ্যা। এরই মাঝে দেশে শুরু হয়েছে দ্বিতীয় দফার আনলক পর্ব। করোনার ধাক্কা সামলে আবারও স্বাভাবিক ছন্দে ফেরার চেষ্টা করছেন সকলে। খুলেছে অফিস। মনে মনে সংক্রমণের আশঙ্কা নিয়েও অফিস যাচ্ছেন অনেকেই। অফিস যাচ্ছেন আর সঙ্গে পেন থাকবেন তা তো হতেই পারে না। কিন্তু বাড়ি থেকে বারবার প্রিয়জন নিজের ব্যবহারের জিনিস অন্যের সঙ্গে হাতবদল করতে বারণ করেছেন। কিন্তু অফিসে কী আর সে বাধা নিষেধ সবসময় মেনে চলা সম্ভব? অন্যের হাত পেন ফেরত নেওয়ার সময় যেন চাপা আতঙ্ক কাজ করছে, তাই না? এই চিন্তা থেকে আপনাকে মুক্তি দিতে পারে ‘স্যানিটাইজার পেন’ । ‘স্যানিটাইজার পেন’ শুনেই অবাক লাগছে তাই না? তবে চলুন খোলসা করে বলা যাক এই সামগ্রী আদতে কীরকম? জানা গিয়েছে, লখনউয়ের এক 11য়ী সম্প্রতি বিভিন্ন ধরনের স্যানিটাইজার বিক্রি করছেন। তিনিই দোকানে রেখেছেন ‘স্যানিটাইজার পেন’। ঠিক কীভাবে কাজ করবে বিশেষ ধরনের এই পেন? ওই 11য়ী বলেন, “বর্তমানে স্যানিটাইজার সকলের কাছে অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। কিন্তু অফিসে যাঁরা যাচ্ছেন কিংবা পড়ুয়াদের ক্ষেত্রে বারবার পেন ব্যবহার করতে হয়। তাঁদের পক্ষে পেন ধরামাত্রই হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করা সম্ভব নয়। তাই তাঁদের কথা ভেবেই ‘স্যানিটাইজার পেন’ তৈরি করা হয়েছে। ওই পেন দিয়ে লেখার সময়েই হাত জীবাণুমুক্ত হয়ে যাবে।” ঠিক সেভাবেই গাড়ির চাবিতেও স্যানিটাইজারের বন্দোবস্ত করেছেন তিনি। ভিন্ন ধরনের স্যানিটাইজার সকলের মন ছোঁবে বলেই আশা ওই 11য়ীর।