জাপানের আকাশে বিশালকায় সাদা বস্তু ঘিরে জল্পনা

আজবাংলা       জাপানের আকাশে অদ্ভুত বিশালাকার মেঘের মত সাদা বেলুন আকৃতির বস্তুকে ঘিরে চলল জল্পনা। তবে রহস্যময় বস্তুটি যে আদতে কী, দীর্ঘ অনুসন্ধানের পরও তা নিয়ে সঠিক কোনও তথ্য দিতে পারল না কেউই। এদিকে রহস্যময় বস্তুটিকে ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেয়ে গেল জিজ্ঞাসু মানুষের মন্তব্য। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে কেউ লিখেছেন, ‘সাদা জিনিসটি মোটেও নড়াচড়া করছে না, এটা কী জিনিস, কেউ বলতে পারবে?’ কেউ কেউ জাপানি ভাষায় হ্যাশট্যাগ ইউএফও ব্যবহার করেছেন। জাপানের আবহাওয়া সংস্থার সেন্দাই ব্যুরো এক কর্মকর্তা আজ বৃহস্পতিবার বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন, আবহাওয়া পর্যবেক্ষণে ব্যবহৃত বেলুনের মতো দেখাচ্ছে বস্তুটি। তবে তা আমাদের নয়। ওই বস্তুটির খোঁজে স্থানীয় পুলিশ হেলিকপ্টার নিয়ে অনুসন্ধান চালায়। তবে তারা এর কোনো হদিশ বের করতে পারেনি। অনেকেই ধারণা করেছিলেন, এটি কিউশু বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যারোনটিকস বিভাগের কোনো বস্তু হতে পারে।তবে প্রকাশ্যে তা অস্বীকার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শিনিচিরো হিগাশিনো ফুজি টিভিকে বলেছিলেন যে, ছবি দেখে বোঝা যায় বস্তুটি সৌর প্যানেল দিয়ে সজ্জিত ছিল। সম্ভবত এটি কোনো বিষয় পর্যবেক্ষণ করছিল বা বৈজ্ঞানিক গবেষণার সঙ্গে যুক্ত ছিল। অন্যদিকে নেটিজেনদের তরফে দাবি করা হচ্ছে, এটি কোনও ভিনগ্রহীদের যান। কেউ আবার বলছেন এই ঘটনার জন্য দায়ী দক্ষিণ কোরিয়া। ষড়যন্ত্র করে তারা করোনাভাইরাস এখানে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য পাঠিয়েছে অদ্ভুত এই যানটিকে। কেউ আবার দাবি করেছে, তবে বেশির ভাগেরই দাবি ভিনগ্রহীদের যান এটি। করোনা পরিস্থিতিতে পৃথিবীর কি হাল তা যাচাই করতেই তাদের আবির্ভাব।  কিন্তু বস্তুটি কী, তা কেউ নিশ্চিত করতে পারেননি বলে একে ‘আনআইডেন্টিফায়েড ফ্লাই অবজেক্ট’ বা ইউএফও বলা হচ্ছে। বিষয়টি খোলাসা না করায় এ নিয়ে সরকারের সমালোচনাও হচ্ছে।