মাকড়সার উপদ্রব বেড়েছে? রইল কিছু টিপস

মাকড়সার উপদ্রব বেড়েছে? রইল কিছু টিপস

আজবাংলা  সারা বছরই ঘরের আনাচে-কানাচে বিভিন্ন ধরণের পোকামাকড়ের উপদ্রব। তেলাপোকা, টিকটিকির পাশাপাশি গৃহস্থ বাড়িতে আরও একটা বড় উপদ্রব মাকড়সা। নিয়মিত ঝাড়পোছ করার পরেও ঘরের কোনে, সিলিং থেকে ঝুলছে মাকড়সার জাল। এমন ছবি হামেশাই চোখে পড়ে।

যতই ঝাড়ু দিয়ে তাড়ানো হোক না কেন আবার ঘরের কোনও না কোনও জায়গায় এরা ঠিক উপস্থিত হয় এবং সেখানে জাল ছড়ায়। ফলে ঘরের আনাচে কানাচে বার বার ঝুল জমে। বারবার পরিষ্কার করলেও ঘর আবার নোংরা হয়ে যায়।  তাই আজকের প্রতিবেদনে দেখে নেব কীভাবে মাকড়সা তাড়াতে পারি? আসুন দেখে নেওয়া যাক সহজ কিছু সহজ কিছু টিপস।

১. সাদা ভিনেগার ব্যবহার করেও মাকড়সা তাড়াতে পারেন। জলের সাথে সাদা ভিনেগার মিশিয়ে ঘরের কোণে এবং দেওয়ালে স্প্রে করুন তাহলে মাকড়সা পালাবে। ভিনেগারে রয়েছে অ্যাসিটিক অ্যাসিড, যার গন্ধ পেলেই মাকড়সা পালাবে। একইভাবে, আপনি বেকিং সোডা ছিটিয়েও ঘর থেকে মাকড়সা এবং অন্যান্য কীটপতঙ্গ তাড়াতে পারেন।

২. পুদিনা পাতার গন্ধও মাকড়সা সহ্য করতে পারে না। তাই ঘর থেকে মাকড়সা তাড়াতে আপনি পুদিনার সাহায্য নিতে পারেন। কয়েকটা পুদিনা পাতা জলে ফুটিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন, তারপর স্প্রে বোতলে ভরে ঘরের সমস্ত কোণে এবং যেসব যায়গায় মাকড়সা বেশি বাসা বাঁধে সেখানে স্প্রে করে দিন। এছাড়া, আপনি পুদিনা পাতার তেলও ব্যবহার করতে পারেন। এই তেল অল্প জলের সাথে মিশিয়ে স্প্রে করুন।

৩. মাকড়সা তাড়ানোর খুব ভালো উপকরণ বোরক্স পাউডার। ঘরের ফাটলে, দরজা–জানলার কোণায়, বাড়ির আনাচেকানাচে এই পাউডার ছড়ালে মাকড়সা আর ঘেঁষবে না।

৪. তামাকের গন্ধ মাকড়সা একদম সহ্য করতে পারে না। তামাকের গন্ধ পেলে মাকড়সা পালিয়ে যায়। তাই বাড়ির সমস্ত কোণে বা যে জায়গাগুলোতে মাকড়সা বাসা বাঁধে সেখানে তামাকের গুঁড়ো ছিটিয়ে দিন। এছাড়া, জলে তামাক ভিজিয়ে সেটি স্প্রে বোতলে ভরে ঘরে তামাক স্প্রে করতে পারেন। দেখবেন ঘর থেকে মাকড়সা পালাবে।

৫. দারুচিনি গুঁড়ো ছিটিয়েও মাকড়সার হাত থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। দারুচিনির কড়া গন্ধের কারণে, মাকড়সা পালায়। একইভাবে, আপনি রসুন দিয়েও মাকড়সা তাড়াতে পারেন। জলে দুই থেকে তিনটি রসুন রেখে সেই জল স্প্রে করতে পারেন।

৬. বাড়িতে কুকুর বা বিড়াল পুষতে পারেন। বিশেষ করে বিড়াল। এই পোষ্য যেকোনও পোকামাকড় দেখলেই তাড়া করে ঘরের বাইরে বের করে দেয়। সেই সঙ্গে এটাও খেয়াল রাখবেন, পোকামাকড় তাড়াতে গিয়ে যেন পোষ্য কোনভাবে ক্ষতিগ্রস্থ না হয়।