মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে বৈধ কাগজপত্রবিহীন অভিবাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু

আজবাংলা নিউইয়র্ক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নয়টি শহরে বৈধ কাগজপত্রবিহীন অভিবাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হচ্ছে শহরগুলো হচ্ছে নিউইয়র্ক, লস অ্যাঞ্জেলেস, শিকাগো, হিউস্টন, আটলান্টা, বাল্টিমোর, ডেনভার, মায়ামি ও সান ফ্রান্সিসকো। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, দেশটিতে আসা অবৈধ অভিবাসীদের বিষয়ে শিগগিরই অভিযান শুরু হবে। তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হবে। অন্যদিকে, অবৈধদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছে অভিবাসন নিয়ে কাজ করা সংগঠনগুলো।আইস নামে পরিচিত অভিবাসন পুলিশের এই অভিযানের খবর ইতিমধ্যে অভিবাসীদের মধ্যে ভীতির সঞ্চার করেছে। জানা গেছে, যেসব অভিবাসীর অব্যাহত অবস্থানের বিরুদ্ধে আদালত ইতিমধ্যে চূড়ান্ত রায় দিয়ে ফেলেছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে এই অভিযান শুরু হয়েছে। আদালত থেকে রায় প্রকাশিত হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে নিজের দেশে না ফিরে গেলে মার্কিন আইনে তা অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হয়। ধারণা করা হচ্ছে, প্রাথমিকভাবে বৈধ কাগজপত্রবিহীন দুই হাজারের মতো অভিবাসীকে জোরপূর্বক দেশে ফেরত পাঠানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে। এঁদের সবার ব্যাপারেই আদালত চূড়ান্ত রায় দিয়ে ফেলেছেন। তবে আশঙ্কা করা হচ্ছে, আইস অভিযানের সময় ধারেকাছে থাকা তালিকাভুক্ত নন—এমন অন্য অভিবাসীদের অনেকে বহিষ্কারের শিকার হতে পারেন। মার্কিন কংগ্রেসের স্পীকার  ন্যান্সি পেলোসি বলেন ট্রাম্প প্রশাসনের অভিবাসন নীতির বিরুদ্ধে সর্বাত্মক লড়াই করে যাচ্ছেন ডেমোক্র্যাটরা। ন্যান্সি পেলোসি আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে সবাই বসবাস করতে পারে। সব অভিবাসীরই সেই অধিকার রয়েছে। সংবিধান সবাইকে সেই অধিকার দিয়েছে।আমেরিকান সিভিল লিবার্টিজ ইউনিয়ন পরামর্শ দিয়েছে, আইসের কোনো প্রতিনিধি গ্রেপ্তারের লক্ষ্যে দরজায় আঘাত করলে তা না খুলতে। কোনো গ্রেপ্তারি পরোয়ানা না থাকলে তারা কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারে না। জোর করে ঢোকার কোনো অধিকারও তাদের নেই।