বকেয়া ডিএ সংক্রান্ত মামলায় এবার শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ রাজ্য

বকেয়া ডিএ সংক্রান্ত মামলায় এবার শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ রাজ্য

এবার সুপ্রিম কোর্টে গেল ডিএ মামলা। বকেয়া মহার্ঘ ভাতা নিয়ে রাজ্য সরকারি কর্মীদের আইনি লড়াই চলছে দীর্ঘদিন ধরে। সেই মামলায় তিন মাসের বকেয়া ডিএ মিটিয়ে দেওয়ার কথা বলেছিল কলকাতা হাইকোর্ট। নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও সেই ডিএ না মেটানোয় রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা হয়।

এবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হল রাজ্য সরকার। শুক্রবার আদালত অবমাননা মামলায় হলফনামা জমা দিয়ে জানাল রাজ্য। রাজ্যের দাবি, আদালত অবমাননা মামলা গ্রহণযোগ্য নয়। আগামী সোমবার সুপ্রিমকোর্টে শুনানির সম্ভাবনা।  চলতি বছরের মে মাসে কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল, যাতে তিন মাসের মধ্যে সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ মিটিয়ে দেওয়া হয়।

সেই হিসেবে অগস্ট মাসের মধ্যে বকেয়া মেটানোর কথা ছিল। কিন্তু সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরও টাকা না পাওয়ায় আবারও আদালতের দ্বারস্থ হয় সরকারি কর্মী সংগঠনগুলি। বকেয়া না মিটিয়ে আদালত অবমাননা করা হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে। হাইকোর্টে বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন ও বিচারপতি রবীন্দ্রনাথ সামন্তের ডিভিশন বেঞ্চের তরফেই বলা হয়েছিল, মহার্ঘ ভাতা সরকারি কর্মীদের প্রাপ্য।

পরে রাজ্য সেই নির্দেশ পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়েছিল। সেই আর্জিও খারিজ হয়ে যায় হাইকোর্টে। রাজ্য সরকার টাকা দিতে পারবে না বলে সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছে, এমনটাই বললেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর দাবি, স্যাটেও হেরেছে রাজ্য, হাইকোর্টেও হেরেছে। সুপ্রিম কোর্টেও হার হবে বলে মনে করছেন তিনি। এই প্রসঙ্গে শুভেন্দু রাজ্য সরকারকে ‘দেউলিয়া’ বলে কটাক্ষ করেছেন।

 উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২৬ জুলাই স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুনাল ডিএ নিয়ে একটি রায় দিয়েছিল। পরে হাইকোর্টে মামলা হয়। স্যাটের সেই রায়ই বহাল রাখে কলকাতা হাইকোর্ট। তবে আইনি লড়াই চলতে থাকলেও ডিএ পাওয়ার কোনও সম্ভাবনাই দেখছেন না কর্মীরা। রাজ্য সরকারের দাবি, যা বকেয়া আছে, তা মিটিয়ে দেওয়া হয়েছে।