শহরের টোটো নিয়ন্ত্রণ করতে সর্বদলীয় বৈঠক মালদা জেলার প্রশাসনিক ভবনে।


দেবু সিংহ আজবাংলা মালদা শহরের টোটো নিয়ন্ত্রণ করতে সর্বদলীয় বৈঠক মালদা জেলার প্রশাসনিক ভবনে। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্য , বিধায়ক তথা ইংরেজবাজার পৌরসভার পৌর প্রধান নিহার রঞ্জন ঘোষ, ভাইস চেয়ারম্যান তথা আরটিও বোর্ডের সদস্য দুলাল সরকার, অতিরিক্ত জেলা শাসক , ডিএসপি ট্রাফিক সুবোধ সরকার, মহকুমাশাসক পার্থ চক্রবর্তী, কংগ্রেস শ্রমিক সংগঠনের চেয়ারম্যান কাজী নজরুল ইসলাম, সিটু জেলা সম্পাদক নজরুল ইসলাম, কংগ্রেস জেলা সভাপতি মোস্তাক আলম, কার্যকরী সভাপতি ভূপেন্দ্র নাথ হালদার, বিধায়ক সমর মুখার্জি সহ অন্যান্য আধিকারিক ও বিভিন্ন দলের সদস্যরা। গত কয়েক মাস ধরে টোটো জ্বালায় ভুগছিল শহর। অযথা যেখানে সেখানে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এরপর প্রশাসনিক বৈঠক করে এক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ঠিক হয় পঞ্চায়েত এলাকার টোটো শহরে ঢুকতে পারবে না। এরপর কিছুটা নিয়ন্ত্রণ হয় যানজট। সোমবার সর্বদলীয় বৈঠক ডাকা হয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে। বিভিন্ন দলের প্রতিনিধিরা এই বৈঠকে উপস্থিত হয়ে টোটো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। বৈঠকে ছোট ইউনিয়ন এর পক্ষ থেকে শহর লাগোয়া সাত কিলোমিটার এর মধ্যে যারা সমস্ত টোটো রয়েছে তাদের শহরে চলতে দিতে হবে এই দাবি রাখেন তারা।বৈঠক নিয়ে জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্য জানিয়েছেন সমস্ত বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। টোটো নিয়ন্ত্রণ করার জন্য প্রত্যেক টোটো চালক কে ড্রাইভিং লাইসেন্স করে দেওয়া এবং টোটোর রুট ভাগ করে দেওয়া। সমস্ত কিছুই এই বৈঠকে আলোচনা করা হয়। বৈঠক শেষে পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া বলেছেন টোটো চালক এবং সর্বদলীয় প্রতিনিধিদের সাথে টোটো নিয়ন্ত্রণের জন্য আলোচনা করা হয়। তবে সাত কিলোমিটারের যে দাবি করেছে টোটো চালু করে তা কোনোমতেই মানা হবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি। আরটিও বোর্ড এর সদস্য দুলাল সরকার জানিয়েছেন শহরের যানজট মুক্ত করতে যা পদক্ষেপ নেওয়া দরকার প্রশাসনের পক্ষ থেকে সে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।