গোপীবল্লভপুরে প্রকাশিত হল সূবর্ণরৈখিক ভাষায় লেখা ‘বাঁহুকি’ পত্রিকা

সূবর্ণরৈখিক ভাষায় লেখা 'বাঁহুকি' পত্রিকা
সূবর্ণরৈখিক ভাষায় লেখা 'বাঁহুকি' পত্রিকা

তৃণ্ময় বেরা,আজবাংলা  ঝাড়গ্রাম:– ঝাড়গ্রাম জেলার গোপীবল্লভপুর১ নং ব্লকে প্রকাশিত হলো সুবর্ণরৈখিক ভাষায় প্রথম সবুজ পত্রিকা ‘বাঁহুকী’। আজ গোপীবল্লভপুরের সুবর্ণরেখা মহাবিদ্যালয়ের নিকটবর্তী বর্গীডাঙ্গার কফি হাউস থেকে প্রকাশিত হলো ‘বাঁহুকী’। পত্রিকার সম্পাদক অনিমেষ সিংহ বলেন, এটা সুবর্ণরৈখিক ভাষার প্রথম সাহিত্য পত্রিকা। যে সুবর্ণরৈখিক ভাষা দীর্ঘদিন অবহেলিত ছিল বা অবহেলিত আছে। হয়ত কোথাও কোথাও এই বিছিন্ন ভাষা নিয়ে চর্চা এবং কাব্যগ্রন্থ বেরিয়েছে। কিন্তু, কোনো সবুজ পত্রিকা ছিল না তাই আমরা ভয়েস অফ হিউম্যেনিটির তরফ থেকে উদ্যোগ নিই, যে সুবর্ণরৈখিক ভাষায় একটা ত্রৈমাসিক পত্রিকা প্রকাশ করবো যেটা আমাদের মাটির ভাষা, যে ভাষায় আমাদের সুবর্ণরেখা নদীর দুই পারের মানুষ কথা বলে। সেই প্রচেষ্টা কে আমরা সার্থক করতে পেরেছি সবাই মিলে, এলাকাবাসী, আমরা এবং এতদ অঞ্চলের সমস্ত লেখক-লেখিকার লেখা তুলে ধরতে পেরে আমরা সবাই গর্ব অনুভব করছি। পত্রিকার প্রচ্ছদে রয়েছে প্রায় আড়াই থেকে তিনশো বছরের পুরনো গিলাকাটিয়া মন্দিরের ছবি। শিল্পী সৌম্যজিত দাস সেই মন্দিরের রুপ তাঁর তুলির টানে পত্রিকার প্রচ্ছদে তুলে ধরেছেন। অন্যদিকে,পত্রিকার বিপরীত দিকে রয়েছে বাঁহুক কাঁধে একজন দইওয়ালার ছবি। যা তাঁর মুঠোফোনে অসাধারন নিপুনতার সাথে তুলে ধরেছেন দিপু মিশ্র। এইসব নিয়ে প্রকাশিত হলো সম্পাদক অনিমেষ সিংহ এবং প্রকাশক রাকেশ জানার প্রথম ত্রৈমাসিক পত্রিকা ‘বাঁহুকী’।