বাংলাদেশ থেকে বাস এসে পৌঁছল শিলিগুড়িতে

আজবাংলা  শিলিগুড়ি     ঢাকা থেকে সোজা বাসে করে সীমান্ত পার হয়ে শিলিগুড়ি এসে শৈলশহর দার্জিলিং তো বটেই, সিকিম ঘোরারও ব্যবস্থা চালু হতে চলেছে। শুক্রবার দুপুরে অবশেষে প্রথম বার পরীক্ষামূলক ভাবে ঢাকা থেকে দু'টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাস পঞ্চগড় জেলার বাংলাবান্ধা হয়ে ভারতের মাটি, ফুলবাড়ি সীমান্ত আসে। শিলিগুড়ির ফুলবাড়ি থেকে একটি ছোট বাসে যাত্রীদের দার্জিলিংয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। দুটি বাসে বাংলাদেশের সরকারি আধিকারিক সহ মোট ৩৫ জন যাত্রী ছিলেন। শিলিগুড়ি থেকে অবশ্য ভারত সরকারের দশ জন আধিকারিক ওই পরীক্ষামূলক যাত্রায় অংশ নিয়েছেন। যাত্রীরা শিলিগুড়ি হয়ে গ্যাংটকের উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন। সোমবার ফের বাস দুটি বাংলাদেশে ফিরে যাবে। ওই বেসরকারি পরিবহণ সংস্থাটি ইতিমধ্যেই ঢাকা-শিলিগুড়ি বাস পরিষেবা চালু করেছে। প্রতিদিনই বাংলাদেশ থেকে পর্যটকেরা বাসে চড়ে শিলিগুড়ি যাতায়াত করছেন। ঢাকা-কলকাতা, ঢাকা-আগরতলা, ঢাকা-গুয়াহাটি-শিলং বাস পরিষেবাও চালু হয়েছে ওই বেসরকারি সংস্থার হাত ধরেই। প্রতিনিধি দলের সঙ্গে এসেছেন বাংলাদেশের পরিবহণ এবং সেতু মন্ত্রকের যুগ্ম সচিব মহম্মদ সফিকুল করিম। তিনি বলেন, ''পরীক্ষামূলক ভ্রমণের পরেই নিয়মিত বাস সার্ভিসের দিন ক্ষণ দ্রুত ঘোষণা করে দেওয়া হবে। রবিবার ছাড়া সপ্তাহের ছ'দিন বাসটি চলবে। ভাড়া-সহ যাবতীয় বিষয় দ্রুত ঠিক করে ঘোষণা করে দেওয়া হবে। গত কয়েক বছরে উত্তরবঙ্গের যত বিদেশি পর্যটক ঘুরতে আসেন, তার মধ্যে সব চেয়ে বেশি সংখ্যায় থাকেন বাংলাদেশীরা। শুধু ঘোরা নয়, সে দেশের বিভিন্ন কর্পোরেট সংস্থার বিজনেস ট্যুর হিসাবে দার্জিলিং, সিকিম বা ডুয়ার্সকে বেছে নেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যে ঢাকা থেকে রংপুর হয়ে বাগডোগরা বিমান চালু করার জন্য দুই দেশের বণিক সভা তত্‍পর হয়ে উঠেছে।