Shani dev| গ্রহরাজ শনি ঠাকুরের পুজোর সঠিক পদ্ধতি

Shani dev| গ্রহরাজ শনি ঠাকুরের পুজোর সঠিক পদ্ধতি

শনি নবগ্রহের একটি অন্যতম গ্রহ, শনি গ্রহকে গ্রহরাজ-ও বলা হয়ে থাকে। শনিদেব হিন্দুধর্ম মতে একজন দেবতা। শনি উগ্র দেবতা বলে কুখ্যাত। জ্যোতিষীদের মতে শনির কুদৃষ্টি অশুভ ফল নিয়ে আসে। সৌরজগতের শনি গ্রহ ও সপ্তাহের শনিবার দিনটি শনিদেবেরর নামে নামকরণ করা হয়। শনিদেব কে শনিশ্চর বা শনৈশ্চর নামেও ডাকা হয়। প্রতি শনিবার পিপুল গাছে (অশ্বত্থ গাছ) জল ঢেলে ও শনিদেবের উপাসনা করলে শনিদেব তার প্রতি অত্যন্ত প্রসন্ন হয়ে সার্বিক সুখ ও আনন্দ প্রদান করে থাকে।

মন্ত্র :ওঁ শং শনৈশ্চরায় নমঃ অস্ত্র :তীর , ধনুক , ত্রিশূল , গদা সঙ্গী :নীলাদেবী বাহন :শকুন প্রতিদিন সূর্যোদয়ের সময় সূর্যদেবকে দর্শনের পর দুচোখ বন্ধ করে এই স্তবটি পাঠ করলে অত্যন্ত প্রসন্ন হন ভগবান ছায়ানন্দন – সূর্যপুত্র দীর্ঘদেহী বিশালাক্ষঃ শিবপ্রিয়ঃ। মন্দচারঃ প্রসন্নাত্মা পীড়া দহতু মে শনিঃ।। পরিচয়: শনি সনাতন হিন্দু ধর্মের একজন দেবতা যিনি সূর্যদেব ও তাঁর পত্নী ছায়াদেবীর পুত্র, এজন্য তাঁকে ছায়াপুত্র-ও বলা হয়। শনিদেব, মৃত্যু ও ন্যায় বিচারের দেবতা যমদেব বা ধর্মরাজের জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা।

                             

শনি যন্ত্র কিনতে এই খানে ক্লিক করুন

মন্দির এবং তীর্থস্থান সমুহ : ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গে এবং বাংলাদেশের হিন্দু অধ্যুষিত অঞ্চলে শনিদেবের ছোটবড় মন্দির দেখা যায়, এবং সেখানে সপ্তাহান্তে শনিবার বড় ঠাকুরের সাপ্তাহিক পুজার্চনা হয়ে থাকে। এছাড়াও সারা ভারতে বেশকিছু বড় বড় শনি মন্দির ও তীর্থস্থান উল্লেখযোগ্য, যেমন তিরুনাল্লার শ্রী শনিশ্চর কোইল ,দেওনার-এর শনি দেবালয়ম, মহারাষ্ট্রের শনি-সিঙ্গাপুর মন্দির, তিতওয়ালার শনি মন্দির, মাদুরাই এর নিকটে কুচানুর-এর শনি মন্দির।

শনিদেবের ব্রত: শনিদেব সম্পর্কে সাধারণ মানুষের ধারণা যতই ভয়ভীতিমিশ্রিত হোক না কেন, মৎস্য পুরাণ কিন্তু শনিদেবকে লোকহিতকর গ্রহের তালিকাতেই ফেলেছে। প্রতি শনিবার সন্ধ্যায় শনিদেবের পূজার্চনা করার বিধান আছে। সাধারনত শনিদেবের মন্দিরে অথবা গৃহের বাইরে খোলা জায়গায় শনিদেবের পূজা হয়।

নীল বা কৃষ্ণগ বর্ণের ঘট, পুষ্প, বস্ত্র, লৌহ, মাষ কলাই , কালো তিল, দুগ্ধ, গঙ্গাজল, সরষের তেল প্রভৃতি বস্তু শনিদেবের ব্রতের জন্য আবশ্যিক। নির্জলা উপবাস বা একাহারে থেকে এই ব্রত পালন করতে হয়। অশ্বত্থ বৃক্ষের তলায় দীপ জ্বালান। এতে শনিদেব তুষ্ট হন। দয়া করে মোমবাতি জ্বালবেন না। মাটির প্রদীপই বিধেয়।

• চেষ্টা করুন সূর্যোদয়ের আগে শয্যাত্যাগ করতে।

• এই দিন মাংস ভক্ষণ বা মদ্যপান থেকে দূরে থাকুন।

• শনিদেবের সঙ্গে সঙ্গে শ্রী হনুমানের পূজাও করবেন।

• এই দিন দান করুন কালো তিল, লোহা, কালো কাপড়।