স্বপ্নে অনুভব করে বাবাকে, স্মৃতি আঁকড়ে দিন কাটাচ্ছে শহিদ জওয়ানের ছোট্ট মেয়ে

স্বপ্নে অনুভব করে বাবাকে, স্মৃতি আঁকড়ে দিন কাটাচ্ছে শহিদ জওয়ানের ছোট্ট মেয়ে
আজবাংলা          ১৫ জুন মধ্যরাতে লাদাখ সীমান্তেভারত-চীন সেনা সংঘর্ষ শুরু হয় আর সেখানেই শহিদ হয়েছেন ভারতের ২০জন জওয়ান | তাদের মধ্যেই ছিলেন আলিপুরদুয়ার জেলার বিন্দিপাড়া গ্রামের সন্তান বিপুল রায় | এই শহিদ জওয়ানের স্মৃতি আঁকড়ে দিন কাটাচ্ছে তার ছোট্ট মেয়ে তমন্না | শহিদ জওয়ান বিপুল রায়ের স্ত্রী তাদের একমাত্র মেয়েকে নিয়ে স্বামীর স্মৃতি আঁকড়ে বেঁচে আছেন | তাদের মেয়ে তমন্না রোজ স্বপ্নে দেখে তার বাবাকে | ছোট্ট মেয়েটি চোখ বুজলেই দেখতে পায় বাবাকে | সে দেখে তার বাবা যুদ্ধ করছেন | হিরোর মত শত্রুদের মারছে | কিন্তু এই ছোট্ট মেয়েটি কিন্তু বোঝে না বাবাকে হারানোর যন্ত্রনা | এই যন্ত্রনা বোঝার মত ক্ষমতা তার আসেনি | সে যে বড্ডো ছোট | তাই স্বপ্নতেই অনুভব করে বাবাকে | তার বাবা যে আর কোনদিন ফিরবে না সেটা বোঝার ক্ষমতাও তার আসেনি | মেয়ের মুখে তার বাবার গল্প শুনে ভবিষ্যতে এগিয়ে চলার শপথ নেন বীর শহিদের স্ত্রী রুম্পা রায় | শহিদ জওয়ান বিপুল রায়ের স্ত্রী ও মেয়ে এখন তার গ্রামের বাড়ি বিন্দিপাড়াতেই আছেন | রুম্পা ও তার মেয়ে যার হাত ধরে মিরাট থেকে গ্রামে ফিরতেন আজ সে আর নেই | শুধু রেখে গিয়েছে স্মৃতি | গত মাসে ১৫ জুন জওয়ান বিপুল রায়ের শহিদ হওয়ার খবর আসার পরেই শোকের ছায়া নেমে আসে তার গোটা গ্রামে | এখন মেয়েকে নিয়েই বাকি জীবনটা কাটাতে চলেছেন রুম্পা রায় | এখনও বিন্দিপাড়া গ্রামে শোকার্ত |