কালীঘাটের মা আনন্দময়ী সন্তানের জীবনে সুখের ঠিকানা ফিরিয়ে নিয়ে আসেন

কালীঘাটের মা আনন্দময়ী সন্তানের জীবনে সুখের ঠিকানা ফিরিয়ে নিয়ে আসেন

আজবাংলা      সংসারে ঠিক ভক্তি ও শক্তির সমন্বয়কারী শক্তির নাম মা কালী ৷ শক্তিরূপিনী দেবী মা কালীর কৃপায় অন্ধকার জীবনে জ্বলে আশার আলো ৷ মা সদা আনন্দময়ী, মা সর্বদা দয়া বৎসল ৷ কালীঘাটের মা কাউকেই কখনও ফেরায় না খালি হাতে ৷ মায়ের সঙ্গে সন্তানের এক আত্মার যোগ ৷ কোনও বাবেই তা এড়িয়ে যাওয়া যায়না বা অস্বীকার করা যায়না ৷ সংসারের সুখ-সমৃদ্ধি বৃদ্ধিতে মা প্রতিটি মুহূর্তেই উজার করে দেন যাতে সংসার অত্যন্ত ভাল করে চলে ৷ কালীঘাটের মা শেখান, কীভাবে জীবনের ক্ষুদ্রাতি ক্ষুদ্র প্রয়োজনেও মাথা নোয়াতে নেই ৷ 

কালীঘাটের আনন্দময়ী মা সব সময়েই সবার পাশে থাকেন ৷ তিনি করুণার এক বিশাল মূর্তি, তার ঘর থেকে খালি হাতে কেউই কখনও ফিরে যায়না ৷ অনেক সমস্যা জীবনকে যখন জড়িয়ে ধরে, হওয়া কাজ আটকে যায়, একবার নয় বহুবারেও অতি সহজ কাজ সম্পন্ন হয়না ৷ তখনই জীবনে প্রয়োজন হয় মহাশক্তির আরাধনার ৷ মহাশক্তির আরাধনায় জীবনের সমস্ত জমাটবাঁধা সম্পর্কগুলির সমাধান আস্তে আস্তে হয়ে থাকে ৷ মধ্যবিত্ত পরিবারের সব থেকে বড় সমস্যা আর্থিক সমস্যা ৷ এই আর্থিক সমস্যাকে কেন্দ্র করেই সংসারে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অশান্তি লক্ষ্য করা যায় ৷ মায়ের সান্নিধ্যেই সততার সন্ধান আসে ৷ মেটে সমস্যা ৷ 

সততাই জীবনকে এমন এক দিশা দেয় , রাতারাতি হয়ত বড়লোক (আর্থিক ভাবে) হওয়া সম্ভব হওয়া যায়না কিন্তু ভালভাবে জীবন কাটানো যায় ও একই সঙ্গে এক দৃষ্টান্ত স্থাপনে সম্ভব হয় ৷ যার যেমন ভাব তার তেমন লাভ, ভক্তিতেই মুক্তি বা বিশ্বাসে মিলায় বস্তু তর্কে বহুদূর ৷ মায়ের প্রতি ভক্তিতেই সন্তানের জীবনে আসে চরম মুক্তি ৷ কালীঘাটের মায়ের কাছে সমস্ত বিপদেই সন্তানেরা যেন রক্ষা পান ৷ মা কালী এমন শক্তিরূপিনী দেবী, তিনি সব বিপদেই পাশে থাকেন ৷ কালীঘাটের মা সব সময়েই বিপদের দিনে হাত শক্ত করে ধরে থাকেন ৷