নাসার মঙ্গল গ্রহের যাত্রার সাথে যুক্ত হল বাঙ্গালীর নাম

নাসার মঙ্গল গ্রহের যাত্রার সাথে যুক্ত হল বাঙ্গালীর নাম
আজবাংলা   মানুষের কৌতূহল সবকিছুতেই। অজানাকে জানার, না দেখা কে দেখার আগ্রহ প্রবল। ঠিক তমনই লাল গ্রহ অর্থাৎ মঙ্গল গ্রহ কে নিয়ে কৌতুহলের শেষ নেই। আজকেই, বৃহস্পতিবারে প্রথম ধাপ সম্পন্ন হবে আর্টেমিস প্রোগ্রামের । রোভার পারসিভের‍্যান্স যাত্রা করবে মঙ্গল গ্রহের উদ্দেশে। এই রোভার মিশনে মোট ৩টি ল্যান্ডিং সাইট করা হয়েছে। এন ই সারটিস, জেজেরো ক্রেটার এবং কলম্বিয়া হিলস। এই মিশনে উন্নত অ্যানালাইজারের দ্বারা নানান তথ্য বিশ্লেষণ করা হবে। ২০২২ সালের মধ্যে জানা যাবে কি কি পাওয়া গেল। ফলে গোটা বিশ্বের মধ্যে উত্তেজনার পারদ চরমে। বিশ্বের এই উত্তেজনায় সামিল হতে চলেছে এক বাঙালির নাম। এই বাঙালির হল শ্রীরামপুরের বাসিন্দা শৌনক দাস। গুগলের গাইড হিসেবে যার পরিচয় রয়েছে। এই শৌনকের নাম যুক্ত আছে এই মার্স মিশনের সাথে। গত বছর নাসা তাদের অফিসিয়াল সাইটে ঘোষণা করে মঙ্গল গ্রহে তারা বিশ্বের মানুষের নাম পাঠাবে। যারা নাম পাঠাতে ইচ্ছুক তারা যেন অবশ্যই আবেদন করে। সেই ঘোষণায় আবেদন করে শৌনক। সারা বিশ্বের মধ্যে থেকে মোট ১০৯৩২২৯৫ জনের নাম তালিকাভুক্ত করা হয়। বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা মানুষের নাম ভেরিফিকেশন করে নাসা। এদের সকলের নামে একটা মাইক্রো চিপ রকেটের মাধ্যমে মঙ্গল গ্রহে পাঠানো হবে। সেই চিপে ছিল শৌনকের নাম। শৌনক জানিয়েছে সংবাদ্মাধমকে, "আমার তো দারুণ লাগছে। আমার নাম যাবে মঙ্গলে। বাঙালি হিসেবে দারুণ গর্ব হচ্ছে আমার। বহুদিন ধরে এই দিনটার অপেক্ষায় ছিলাম। অবশেষে আজ সেটা পূর্ণ হতে চলেছে।" এরইমধ্যেই শৌনকের কাছে নাসা'র থেকে বোর্ডিং পাস পাঠানো হয়ে গেছে। সেখানে স্ট্যাটাসে লিখে দেওয়া আছে ‘নাও বোর্ডিং’।এই বৃহস্পতিবার বিকেল ৫'টায় মঙ্গল গ্রহের উদ্দেশ্যে রওনা দিচ্ছে নাসার এই মঙ্গলযান। পারসিভের‍্যান্স মহাকাশ যানের নামের উদ্দেশ্য হল কিছু বাধাকে জয়লাভ করা। ইউ এস এ'র ফ্লোরিডার কেপ ক্যানাভেরাল এয়ার ফোর্স স্টেশন থেকে এই রকেট পাড়ি দেবে। ২০২১ সালের ১৮ ফ্রেব্রুয়ারির মধ্যে সেটি মঙ্গল গ্রহে গিয়ে পৌছবে। লাল মাটিতে প্রাণের সন্ধান করবে সেটি। এছাড়া পাথর ও মাটি সংগ্রহ করে পৃথিবীতে পাঠানো হবে। এইসব কিছুর মধ্যে যুক্ত জ্বলজ্বলে হয়ে থাকল এক বাঙালির নাম।