টানা বৃষ্টিতে নর্দমা থেকে ১১ কেজি ওজনের কাতলা ধরলেন যুবক

টানা বৃষ্টিতে নর্দমা থেকে  ১১ কেজি  ওজনের  কাতলা ধরলেন যুবক

অবিরাম বৃষ্টিতে ভাসছে কলকাতার বিস্তীর্ণ অংশ। কোথাও রাস্তার উপর জল বইছে, আবার কোথাও জল ঢুকেছে ঘরে। সব মিলিয়ে আশ্বিনের বৃষ্টিতে প্লাবিত মহানগরীর বিস্তীর্ণ অংশ। কিন্তু এত সমস্যার মধ্যে বৃষ্টির জমা জল আনন্দের খোরাকও দিচ্ছে। যেমন নিউটাউনের জলে ডোবা রাস্তায় জাল ফেললেই উঠছে মাছ। তেমনি মনের আনন্দে বৃষ্টির জমা জলে মাছ ধরতে গিয়ে ১১ কেজি ৭০০ গ্রাম ওজনের আস্ত কাতলা (Katla Fish) পেলেন যুবক। এই ঘটনায় রীতিমতো তাজ্জব এলাকাবাসী।

গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে দক্ষিণবঙ্গের অন্যান্য জায়গার মতো ভেসে গিয়েছে ভাঙড়ের বিভিন্ন জায়গা। বিখ্যাত বৈদিক ভিলেজের সামনেও জমেছে জল। সেখানকার মাছের ভেড়িগুলিও জলের নিচে চলে গিয়েছে। এর ফলে অসংখ্য ছোট-বড় মাছ রাস্তার উপর উঠে এসেছে। এই সুযোগে দলবেঁধে মাছ ধরছে এলাকাবাসী। ছেলে থেকে বুড়ো, কেউ মাছ ধরার জাল আবার কেউ গামছা নিয়ে বেরিয়ে পড়েছে। সকলের ভাগেই কিছু-না-কিছু জুটছে।

এলাকার যুবক সৌমিত্র নস্কর আবার এই বিষয়ে একটু বেশিই উত্‍সাহী। বৃষ্টি হলেই সে জাল নিয়ে রাতবিরেতে বেরিয়ে পড়ে মাছ ধরার জন্য। বৃষ্টির কারণে গত কয়েকদিন ধরেই মাছ ধরে বেড়াচ্ছে সৌমিত্র। বুধবার সকালে সে একইরকমভাবে মাছ ধরার জাল নিয়ে বেরিয়ে পড়ে, আর হাতে গরম পুরস্কার পেয়ে যায়। তার জালে ধরা পড়ে ১১ কেজি ৭০০ গ্রাম ওজনের একটা ইয়া বড়ো কাতলা মাছ।

এই ঘটনায় ব্যাপক খুশি সৌমিত্র। স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ীরা তার কাছ থেকে এই কাতলা মাছটা কিনে নিতে চাইলেও সে বিক্রি করবে না বলে জানিয়েছে। তবে শুধু এই মস্ত কাতলাটি নয়, গত তিন-চার দিনে বাড়ির আশেপাশের রাস্তা ও জলাশয় থেকে প্রায় ৮০ কেজি মাছ ধরেছে সে। ওই যুবকের বাড়ির লোকেরা এই ঘটনায় বেশ খুশি। পরিবার-পরিজনের পাশাপাশি প্রতিবেশীরাও মাছটি দেখার জন্য সৌমিত্রের বাড়িতে ভিড় জমিয়েছে।

সকলেই একবার নিজের হাতে মাছটি ধরতে চায়। নিউটাউনের রাস্তায় জমা জলে ভাই-বোন মিলে হাত ডুবিয়ে ধরলেন কাতলা মাছ! তার পর বাড়িতে ফোন করলেন জাল আনার জন্য। পরিবারের সবাই মিলে সারা রাত ধরে প্রায় ১৫ কেজি মাছ ধরলেন। ভিডিয়ো তুললেন। নেটমাধ্যমে পিউ মণ্ডলের যে ভিডিয়ো মুহূর্তেই জনপ্রিয়।