মালদায় মোবাইল ফোন বাঁচাতে গিয়ে ট্রেনে পা কাটা গেল যুবকের

আজবাংলা হরিশ্চন্দ্রপুর চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে যাওয়া মোবাইল তুলতে গিয়ে এক যুবকের পা কাটা গেল। ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার কুমেদপুর রেলস্টেশনে। আহত যুবকটিকে রেল পুলিশ প্রথমে হরিশ্চন্দ্রপুর প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা রাতে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করে।

বর্তমানে সে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। জানাগেছে, আহত যুবকের নাম শ্যামল কর্মকার, বাড়ি হরিশ্চন্দ্রপুর থানা বারদুয়ারী এলাকায়। পেশায় দিনমজুর। পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত কালকে রাতে সে বাড়ি থেকে বেরিয়ে শ্বশুরবাড়ি যাচ্ছিল হরিশ্চন্দ্রপুর থানার মালিওর এলাকায় তার শ্বশুরবাড়ি। তার স্ত্রী মাম্পি দাস বাবার বাড়িতে ছিলেন। হরিশ্চন্দ্রপুর থেকে ট্রেনে চেপে কুমেদপুর স্টেশনে যখন গাড়িটি ঢুকছিল সেই সময় সে মোবাইলে ফোনে কথা বলছিল। হঠাত্‍ই তার মোবাইল ফোন প্লাটফর্মে পড়ে যায় এবং সেই চলন্ত গাড়ি থেকেই মোবাইল ফোনটি তুলতে গেলে প্ল্যাটফর্মের নিচে পড়ে যায়। তার ডান পা কাটা পড়ে ও বাম পা গুরুতর জখম হয়। সঙ্গে সঙ্গে রেল পুলিশ তাকে প্রথমে হরিশচন্দ্রপুর প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসে এবং সেখান থেকে তাঁকে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। জখম বেশি হওয়ায় তার ডান পা ইতিমধ্যে কাটা পড়েছে ও বাম পা গুরুতর জখম হয়েছে।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!