নোভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণে রাজ্যে 'তৃতীয় মৃত্যু'

আজবাংলা      বাংলায় করোনার বলি এখন ৩৷হাওড়া হাসপাতালে আক্রান্তের মৃত্যু ৷ তবে মৃত্যুর আগে তিনি করোনা আক্রান্ত এই খবর নিশ্চিত হয়নি ৷  সোমবার রাতে SSKM-এ লালারসের পরীক্ষার জন্য আসে৷লালারস পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে৷ করোনা 'আক্রান্ত' রোগিণীর চিকিৎসা ও মৃত্যুর ঘটনায়, চূড়ান্ত গাফিলতির অভিযোগে এদিন সকালে হাসপাতালে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন কর্মরত নার্সরা। হাওড়া হাসপাতালকে "লক" করে দিতে পারে স্বাস্থ্য ভবন। মঙ্গলবার সকালে স্বাস্থ্য ভবন সূত্রে এমনই  খবর মিলেছে। আরও জানা গিয়েছে, হাওড়া হাসপাতাল থেকে রোগীদের অন্যত্র সরিয়ে গোটা হাসপাতালকে আইসোলেট করা হবে।জ্বর ও শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত ৪৮ বছরের মহিলার মৃত্যু হয়েছে নোভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণে। প্রাথমিক রিপোর্ট এমনটাই বলছে। নিশ্চিত করতে দ্বিতীয় পরীক্ষা করা হচ্ছে এসএসকেএম-এর ল্যাবরেটরিতে। হাওড়া হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ভূমিকায় চূড়ান্ত ক্ষুব্ধ স্বাস্থ্য ভবন। হাসপাতালের নার্স থেকে একাধিক চিকিৎসক বারবার কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছিলেন, যা যা উপসর্গ দেখা যাচ্ছে তাতে এই মহিলা নোভেল করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে থাকতে পারেন। তাই তাঁকে আইসোলেশনে রাখা উচিত। কিন্তু কোনও নিষেধ না মেনে তাঁকে সাধারণ ওয়ার্ডে অন্যান্য রোগীদের সঙ্গে রেখে দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ। এই মৃত্যু ছাড়াও আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ল ৷  রাজ্যে নতুন করে ৪ করোনা আক্রান্তের খোঁজ৷  রাজ্যে করোনা আক্রান্ত বেড়ে ২৬ ৷ টালিগঞ্জের বাসিন্দা ঢাকুরিয়ার হাসপাতালে ভর্তি৷ করোনা আক্রান্ত পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুরের বাসিন্দা, তিনি মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হয়েছেন ৷ আরেক আক্রান্ত সল্টলেকের বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৷