ভারত থেকে বাংলাদেশে গরু পাচারের সময় বিএসএফের গুলিতে খতম তিন বাংলাদেশী

দেবু সিংহ  আজবাংলা  মালদা    ভারত বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকা মালদা জেলার হবিবপুর থানার বৈদ্যপুর গ্রামপঞ্চায়েতের কেদারীপাড়া বিওপির কাছে বাংলাদেশের চোরাকারবারীদের সাথে ১৫৯নং বিএসএফ জাওয়ানদের গুলির সংর্ঘস। বিএসএফের গুলিতে তিন বালাদেশীর মৃত্যু।বুধবার রাতে বাংলাদেশের বেশ কিছু গরু ব্যবসায়ী সীমান্ত পার করে দক্ষিণ দিনাজপুর দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে। বৃহস্পতিবার ভোরে গরু নিয়ে ভোরে ভারত ও বাংলাদেশ সীমান্তের ২৩১/১০ (S) মেন পিলার এলাকা দিয়ে ফের বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা করছিল। সেসময় ক্যাদারিপাড়া ক্যাম্পের টহলদারি দলের BSF জওয়ানদের চোখে পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে ওই ব্যবসায়ীদের পিছন থেকে গুলি করে বিএসএফ। অন্যরা পালিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়তে পারলেও ঘটনাস্থলেই মারা যায় সঞ্জিত ও কামাল। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মফিজুল বাংলাদেশে ঢুকে পড়লেও পরে মারা যায়।মৃতরা হলো বাংলাদেশের দুয়ারপাল উপজেলার নীলমারি বিল সীমান্তের ঠিক উলটো পারে। মৃতরা হল পোরশা উপজেলার বিষ্ণুপুর বিজলীপাড়ার গ্রামের শুকরার ছেলে সঞ্জিত ওঁরাও, কাঁটাপুকুর গ্রামের জিল্লুর রহমানের ছেলে কামাল এবং চকবিষ্ণুপুর দিঘিপাড়ার খোদাবক্সের ছেলে মফিজুলউদ্দিন।এই ঘটনা কেন্দ্র করে আজ সকালে মালদহের হবিবপুর থানার শিরসি কলাইবাড়ি সীমান্তে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। সীমান্তে গুলিবিদ্ধ জোড়া মৃতদেহ পড়ে থাকার খবর পেয়ে কলাইবাড়ি এলাকায় ছুটে যায় হবিবপুর থানার আইসি পূর্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশের হস্তক্ষেপে উত্তেজনা প্রশমিত হয়। এরপর নিয়ম মেনে দেহগুলি ও ঘটনাস্থলের ভিডিও তোলে পুলিশ।  ময়নাতদন্তের জন্য দেহগুলি মালদহ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এর পাশাপাশি একজনকে গ্রেপ্তার করে জেরা করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। অটক হওয়া যুবকের নাম কবির হাসান (২১)  বাড়ি বাংলাদেশের নওগাঁ জেলাতে।আজ ভোরে এই ঘটনা ঘটেছে। খবর দেওয়া হয়েছে হবিবপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে। তদন্ত শুরু করেছে।