সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়ার জন্য তৃণমূলের হাতে আক্রান্ত গ্রামবাসী

তৃণমূল /বিজেপি
তৃণমূল /বিজেপি

আজবাংলা   ১৮ নভেম্বর বীরভূমের মল্লারপুরে মুকুল রায়ের উপস্থিতিতে পাঁচ শতাধিক সিপিএমকর্মী-সমর্থক বিজেপিতে যোগ দেন। অভিযোগ, এরপরই তাঁগের নাম বাদ দেওয়া হয় একশো দিনের কাজের তালিকা থেকে। তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ ওঠে। শুরু হয় শাসানি। সেই শাসানিই সন্ত্রাসের রূপ নেয় তারপর।বৃহস্পতিবার রাতে পরিস্থিতি চরমে ওঠে। গভীর রাতে বিজেপিতে যোগ দেওয়া পরিবারগুলিতে ঢুকে যথেচ্ছ অত্যাচার চালানো হয় বলে অভিযোগ। ভাঙচুর-লুঠপাট চলে। অকু শেখ, সানোয়ার শেখের বাড়িতে তাণ্ডব তলে। এই ঘটনায় তৃণমূল কর্মী নাসিম শেখ ও তার সাঙ্গপাঙ্গদের বিরুদ্ধে অভিযোগ। ব্যাপক বোমাবাজি চলে। বোমার আঘাতে চারজন গ্রামবাসী গুরুতর আহত হন। সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখানোর পর তৃণমূলের হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে গেরুয়া শিবির। বিজেপির তোপ, তৃণমূল এখন ভয় পাচ্ছে বিজেপিকে। তাই সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় তৃণমূলের রাগ গিয়ে পড়ছে গ্রামবাসীদের উপর। বিজেপির বৃদ্ধিতে তটস্থ তৃণমূল শিবির। তাই সন্ত্রাস শুরু করেছে এলাকায়। সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়ার জন্য তৃণমূলের হাতে আক্রান্ত হতে হল গ্রামবাসীদের। বীরভঊমের মযূরেশ্বর এক নম্বর ব্লকের কোট গ্রামের ঘটনা বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির যথার্থ পরিচায়ক বলে মনে করছে রাজনৈতি মহল।