করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল তৃণমূল বিধায়কের

আজবাংলা      করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ফলতার তৃণমূল বিধায়ক তমোনাশ ঘোষের। বেশ কয়েকদিন ধরে বাইপাসের ধারে এক বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি ছিলেন তিনি। গত তিনদিন ধরে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। বুধবার সকালে ওই বেসরকারি হাসপাতালেই মৃত্যু হয় তাঁর। বর্ষীয়ান রাজনীতিকের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ রাজনৈতিক মহল। গত এক মাসের বেশি সময় তিনি চিকিত্‍সাধীন ছিলেন। গত সপ্তাহেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তমোনাশের ব্যাপারে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। বলেছিলেন, 'চিকিত্‍সকরা চেষ্টা করছেন। কিন্তু আমি জানি না তমোনাশ ঘোষ বাঁচবে কিনা।' আশঙ্কাই সত্যি হল।  তমোনাশবাবুর দুই মেয়েও কোভিডে সংক্রামিত হয়েছিলেন। তাঁরা অবশ্য সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন। তৃণমূলের জন্মলগ্ন থেকে দলে ছিলেন তমোনাশবাবু। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বহু আন্দোলনের শরিক ছিলেন তিনি। বরাবরই মিশুকে প্রকৃতির মানুষ, তাই অন্য দলেও তাঁর ব্যক্তিগত স্তরে অনেক বন্ধু রয়েছে। এদিন সকালে তাঁর মৃত্যুর খবর পেয়েই শোকের ছায়া নেমে এসেছে শাসক দলে।তমোনাশবাবু ছিলেন দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগমের চেয়ারম্যান। সেই কাজেই গত মাসে দুর্গাপুর গিয়েছিলেন তিনি। সেখানেই অসুস্থ হয়ে পড়েন ফলতার তিন বারের তৃণমূল বিধায়ক। তারপর কলকাতায় ফিরে আসার পর ২২ মে তাঁর নমুনা পরীক্ষা হলে করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। বলতে গেলে প্রায় শুরু থেকেই তাঁর তীব্র শ্বাসকষ্টের সমস্যা ছিল। তাই হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর পরই তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়। হাসপাতাল সূত্রে খবর, মাল্টি অর্গ্যান ফেলিয়োর হয়ে মৃত্যু হয়েছে তমোনাশ। তাঁর হৃদপিণ্ড, কিডনি এবং ফুসফুস বিকল হয়ে যায়।