ত্রিপুরা বিধানসভায় আইপিএফটির জন্য পৃথক আসন বরাদ্দ

ত্রিপুরা বিধানসভা
ত্রিপুরা বিধানসভা

আজবাংলা আগরতলা জোট শরিক হিসেবে বিধানসভার প্রথমদিন থেকেই একত্রে বসতেন শাসক জোটের সদস্যরা। কিন্তু, সম্প্রতি আইপিএফটি ত্রিপুরা বিধানসভার অধ্যক্ষের কাছে পৃথক আসনের দাবি জানায়। সংবিধানে তাতে আপত্তি করার সুযোগ নেই, তাই অধ্যক্ষও আইপিএফটি বিধায়কদের জন্য পৃথক আসন বরাদ্দ করেছেন।আইপিএফটি-র দুই মন্ত্রী অবশ্য নির্দিষ্ট আসনেই বসেছেন। তবে, তাঁদের দলের বাকি ছয় বিধায়ক আজ আলাদা আসনে বসেছেন। আইপিএফটি-র বিধায়ক বৃষকেতু দেববর্মা, ধীরেন্দ্র দেববর্মা, প্রশান্ত দেববর্মা, ধনঞ্জয় ত্রিপুরা, সিন্ধুচন্দ্র জমাতিয়া এবং প্রেমকুমার রিয়াং ট্রেজারি বেঞ্চের সদস্য হয়েও পৃথক আসনে একত্রে বসেছেন। বিজেপি সদস্যরা আলাদা বসেছেন।তবে, ত্রিপুরায় শাসক জোটের সম্পর্কে চাপানউতোর প্রতিনিয়ত চলছে, তা নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না। তাই, বিধানসভায় আলাদাভাবে আসনে বসার জন্য জোট শরিকের মধ্যে সম্পর্ক নিয়ে রাজনৈতিক মহলে নতুন করে চর্চা শুরু হয়েছে।এ-বিষয়ে আইপিএফটি সভাপতি তথা রাজস্বমন্ত্রী নরেন্দ্রচন্দ্র দেববর্মা বলেন, প্রত্যেক দলের নিজস্ব পরিচিতি থাকা অস্বাভাবিক কিছু নয়। সেক্ষেত্রে জোট শরিক হলেও পৃথক আসনে বসা সংবিধান বিরোধী নয়। বিধানসভায় নিজের আলাদা পরিচিতির জন্যই আইপিএফটি বিধায়কদের আলাদা আসন বরাদ্দের দাবি অধ্যক্ষের কাছে জানানো হয়েছিল। অধ্যক্ষ আমাদের দাবি মেনে আলাদা আসন বরাদ্দ করেছেন। তাই বিধানসভায় আলাদা পরিচিতি পেল আইপিএফটি।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!