ত্রিপুরার মন্দিরগুলিতে পশুবলি নিষিদ্ধ করল ত্রিপুরা হাইকোর্ট

মন্দিরগুলিতে পশুবলি নিষিদ্ধ
মন্দিরগুলিতে পশুবলি নিষিদ্ধ

আজবাংলা শুক্রবার মন্দিরগুলিতে পশুবলি নিষিদ্ধ করে রায় কার্যকর করতে রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিল আদালত। বিচারপতি সঞ্জয় কারোল ও বিচারপতি অরিন্দম লোধার বেঞ্চের পক্ষ থেকে এদিন বলা হয়, মাতা ত্রিপুরেশ্বরী মন্দিরে রোজ বলি দেওয়ার রেওয়াজও নিষিদ্ধ করা হল। পাশাপাশি রাজ্যে বন্ধ হল যে কোনও ধরনের পশু-পাখি বলি দেওয়ার প্রথা।উল্লেখ্য, রাজ্যের মন্দিরগুলিতে পশুবলি নিষিদ্ধ করার আবেদন করে হাইকোর্টে একটি পিআইএল করেছিলেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি সুভাষ ভট্টাচার্য। খোদ রাজ্য সরকার চাইলেও আর পশুবলি দিতে পারবে না। সাফ জানিয়ে দিয়েছে ত্রিপুরা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ।
প্রধান বিচারপতি সঞ্জয় কারোল এবং বিচারপতি অরিন্দম লোধের ডিভিশন বেঞ্চ শুক্রবার এই ঐতিহাসিক রায় দিয়েছে। রায়ে হাইকোর্ট জানিয়েছে, ‘‌পশুপাখিদেরও বেঁচে থাকার মৌলিক অধিকার আছে। ত্রিপুরার কোনও মন্দির কিংবা মন্দিরের ত্রিসীমানায় আর পশুবলি দেওয়া যাবে না। পশুবলির অনুমতি দিতে পারবে না রাজ্য সরকার। এমনকী, সরকার নিজস্ব উদ্যোগেও আর বলি দিতে পারবে না।’‌ এই নির্দেশ অবিলম্বে কার্যকর করার জন্য প্রতিটি জেলাশাসক এবং পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দিয়েছে উচ্চ আদালত। ত্রিপুরার বেশ কিছু মন্দিরে অসংখ্য পশুবলি হয়। এবং অধিকাংশ বলির খরচ সরকারই দেয়। সেদিকে বিশেষ নজর দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। ত্রিপুরেশ্বরী এবং চতুরদাস দেবতা মন্দিরে সিসিটিভি বসানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে মুখ্যসচিবকে প্রতি মাসের রেকর্ডিংয়ের তথ্য সংগ্রহ করারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!