আসন্ন জি-২০ সম্মেলনে পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করবেন না ট্রাম্প

Trump not meeting Putin in the upcoming G-20 summit
পুতিন ও ট্রাম্প

আজবাংলা    অবৈধভাবে রাশিয়ার জলসীমায় প্রবেশের অভিযোগে ইউক্রেনের দুইটি গানবোট ও একটি টাগবোট আটক করে রুশ বর্ডার গার্ড। জাহাজে থাকা নাবিকদেরও আটক করে রাশিয়া। এ ঘটনার পর থেকেই হোয়াইট হাউস থেকে পুতিনের সঙ্গে বৈঠক বাতিলের কথা উঠেছিল। ইউক্রেনের ‘জাহাজ আটক’ ইস্যুতে পুতিনকেই দুষছেন জার্মান চ্যান্সেলর মর্কেল। তিনি বলেন, রাশিয়া বিনা কারণে ইউক্রেনের জাহাজ ও নাবিকদের আটকে রেখেছে। আর্জেন্টিনার বুয়েনস আয়ার্সে আসন্ন জি-২০ সম্মেলনের ফাঁকে ট্রাম্প-পুতিন বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। আসন্ন জি-২০ সম্মেলনে পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করবেন না উল্ল্যেখ করে ট্রাম্প বলেন, ‘ওই ঘটনার পর রাশিয়া থেকে জাহাজগুলো এবং নাবিকেরা এখনো ইউক্রেনে ফেরেনি।এই অবস্থায় রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে আমার পূর্বনির্ধারিত বৈঠক বাতিল করাটাই সব পক্ষের জন্য ভালো হবে।’ অথচ এর ঘণ্টাখানেক আগেই সাংবাদিকদের কাছে পুতিনের সঙ্গে বৈঠক হতে পারে বলে জানিয়েছিলেন ট্রাম্প।রুশ বর্ডার গার্ড কর্তৃক ইউক্রেনের জাহাজ আটকের পর থেকেই পুতিনের সঙ্গে নির্ধারিত বৈঠক বাতিলের হুমকি দিয়েছিল ওয়াশিংটন। সে হুমকি শুধু মৌখিকই ছিল। এবার সেটা লিখিত ভাবে জানালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার এক টুইট বার্তায় বৈঠক বাতিলের খবর নিশ্চিত করেন ট্রাম্প।  ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্কো বলেছেন, রাশিয়া যাতে ইউক্রেনের মাটিতে নিজস্ব বাহিনী গড়ে তুলতে না পারে, তার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ২০১৪ সালে কৃষ্ণ সাগরের দ্বীপ সংলগ্ন ক্রাইমিয়া দখলের জন্য এমন নীতিই নিয়েছিল রাশিয়া— সেই স্মৃতি থেকে সতর্ক থাকতে চাইছে ইউক্রেন। এর আগে দেশের বেশ কয়েকটি অংশে সামরিক আইন জারি করেছে তারা। সম্প্রতি রুশ নিয়ন্ত্রণে থাকা ক্রাইমিয়ার উপকূলে ইউক্রেনের তিনটি জাহাজ আটক করার অভিযোগ ওঠে রাশিয়ার বিরুদ্ধে। পাশাপাশি ২৪ জন ইউক্রেনীয় নৌসেনাকেও আটক করা হয় বলে দাবি। সেই থেকেই দু’দেশের বিবাদ বেড়েছে। ওই ২৪ জনকেই বিনা বিচারে দু’মাস আটকে রাখার কথা জানায় ক্রাইমিয়ার একটি আদালত। তবে বৃহস্পতিবার নৌসেনার মধ্যে কয়েক জনকে আবার মস্কোয় পাঠানো হয়েছে বলে জানা গিয়েছে সংশ্লিষ্ট অফিসারদের আইনজীবী মারফত।