মর্মান্তিক ঘটনা, গায়ে স্যানিটাইজার ঢেলে জ্বালিয়ে খুন করা হল সাংবাদিককে

মর্মান্তিক ঘটনা, গায়ে স্যানিটাইজার ঢেলে জ্বালিয়ে খুন করা হল সাংবাদিককে

আজ বাংলা: ফের মর্মান্তিক ঘটনার সাক্ষী থাকল উত্তরপ্রদেশ। রাজ্যে এক সাংবাদিক ও তাঁর বন্ধুকে স্যানিটাইজার দিয়ে আগুন জ্বালিয়ে পুড়িয়ে মেরে ফেলা হল। এই ঘটনার গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান-সহ তিনজন হামলাকারীকে সোমবার গ্রেফতার করল পুলিশ।


সূত্রের খবর, লখনউয়ের সংবাদপত্র রাষ্ট্রীয় স্বরূপে লিখতেন ৩৭ বছরের সাংবাদিক রাকেশ সিং নির্ভিক ও তাঁর ৩৪ বছরের বন্ধু পিন্টু সাহু। শুক্রবার লখনউ থেকে প্রায় ১৬০ কিমি দূরে বলরামপুরে রাকেশের গ্রামের বাড়ি থেকে তাঁদের আগুনে গুরুতরভাবে দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

 পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখে পিন্টুর দেহে প্রাণ নেই। আর রাকেশকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও তার কিছুক্ষণ পরেই তাঁরও মৃত্যু হয়। যদিও মৃত্যুর আগে দেওয়া শেষ জবানবন্দিতে হাসপাতালকে রাকেশ জানিয়েছেন,

তিনি নিয়মিতভাবে গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান ও তাঁর ছেলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে লিখতেন সংবাদপত্রে। আড়াই মিনিটের ভিডিয়োয় তাঁকে বলতে শোনা গিয়েছে, 'সত্য খবরের রিপোর্টিং করার এটাই হল মূল্য।'


 

বলরামপুর থানার এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছে, এই অপরাধের জন্য তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃতদের মধ্যে একজন হল রিংকু মিশ্র, সে পঞ্চায়েত প্রধানের ছেলে। আরেক অভিযুক্তের নাম আক্রম।

তার বন্ধু ললিত মিশ্রকে খুনের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। পুলিশ জানিয়েছে, দুই সাংবাদিকের গায়ে অ্যালকোহল সমৃদ্ধ হ্যান্ড স্যানিটাইজার ঢেলে তাদের জ্বালিয়ে দিয়েছে অভিযুক্তরা। 

বলরামপুরের পুলিশপ্রধান দেব রঞ্জন বর্মা জানিয়েছেন, 'একে দুর্ঘটনা বলে দাবি করে পিঠ বাঁচাতে চাইছে অপরাধীরা। কিন্তু তাদের কথায় অনেক ফাঁকফোকড় রয়েছে, এবং আমরা বুঝতে পেরেছি যে এটা একটা ষড়যন্ত্র।'

পুলিশের দাবি, খুনের পেছনে দুটি মোটিভ থাকতে পারে। এক হল, রাকেশের সাংবাদিকতা অথবা রিংকুর সঙ্গে পিন্টুর পেমেন্ট নিয়ে দ্বন্দ্ব। এই ঘটনায় আরও অনেককে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।