অস্ট্রেলিয়ার সিডনির রিজেন্টস পার্কের মন্দিরে ভাঙচুর

Vandalism in Sydney's Regents Park temple in Sydney
অস্ট্রেলিয়ার সিডনির রিজেন্টস পার্কের মন্দিরে ভাঙচুর

আজবাংলা সিডনি  অস্ট্রেলিয়ার সিডনির রিজেন্টস পার্কে হিন্দু মন্দিরে হামলা চালিয়ে মন্দিরের প্রায় ৩০টি প্রতিমা ধ্বংস করার পর তাতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় এ হামলার ঘটনা ঘটে । গতকাল সন্ধ্যা ছয়টার দিকে পূজা করতে মন্দিরে পৌঁছান মন্দিরের প্রধান পূজারি পণ্ডিত পরাশ রাম মহারাজ। মন্দির থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখে তিনি প্রথমে ভাবেন, তাঁকে ছাড়াই কেউ পূজা শুরু করে দিয়েছে কি না। এই ধরনের আরো খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পাতায় লাইক করুন

চটজলদিই তিনি দেখতে পান মন্দিরের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একজন মহিলা ভেতর থেকে ছুটে এসে জানান, তাঁকে দেখে ভেতরে অবস্থানরত তিন–চারজন যুবক পেছনের জানালা দিয়ে পালিয়ে যায়। জরুরি সেবার জন্য কল করা হলে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পুলিশ মন্দিরটি জনসাধারণের জন্য নিষিদ্ধ করে দেয় এবং রাত দুইটা পর্যন্ত ফরেনসিক পরীক্ষা চালায়। তদন্তের কোনো প্রতিবেদনই এখনো জনসমক্ষে প্রকাশ করা হয়নি। তদন্তের কাজ এখনো চলছে বলে জানিয়েছে রাজ্য পুলিশ।

মন্দিরে ভাঙচুর
মন্দিরে ভাঙচুর

অস্ট্রেলিয়ায় এই হামলার ঘটনায় দেশটির বিভিন্ন মন্ত্রী ও রাজনৈতিক নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। দেশটির নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের বহুজাতিক সংস্কৃতিমন্ত্রী রে উইলিয়ামস তাঁর দেওয়া বিবৃতিতে বলেন, ‘নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্য সরকার কখনোই সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় তাত্পর্যবিষয়ক অপবিত্রতা সহ্য করবে না, যা আমাদের বহু সংস্কৃতির সম্প্রদায়গুলোর সমন্বয়ের জন্য হুমকিস্বরূপ।’ ক্যাম্বারল্যান্ড কাউন্সিলের  কাউন্সিলার সুমন সাহা জানান এই মন্দিরটি আমার ক্যাম্বারল্যান্ড কাউন্সিলের মধ্যে অবস্থিত। খবর পেয়ে আমাদের কাউন্সিলের মেয়রকে সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে যাই। যা হয়ে গেছে, তা খুবই দুঃখজনক। আমাদের মন ভেঙে দেওয়ার মতো। দেখে আমার চোখের জল লুকাতে পারিনি।

Vandalism in Sydney's Regents Park temple in Sydney
মন্দিরে ভাঙচুর

নিউ সাউথ ওয়েলসের বিরোধীদলীয় নেতা লুক ফোলি বলেন, ‘আমি রিজেন্টস পার্কের হিন্দু মন্দিরের ওপর ভয়ানক ও ঘৃণ্য হামলার তীব্র নিন্দা করছি। এটি শান্তিপূর্ণ অস্ট্রেলীয়দের বিরুদ্ধে একটি অপরাধ। যারা এ ধরনের অপরাধ করেছে, তাদের দ্রুত বিচারের আওতায় আনা হোক।’ অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন, নাগরিকত্ব এবং বহুসংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রী ডেভিড কোলম্যান এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘একটি সম্প্রদায়ের ধর্মীয় সমাবেশের কেন্দ্রস্থলে ধ্বংসাত্মক হামলা হওয়াটা দুঃখজনক। এ ধরনের কার্যকলাপ অস্ট্রেলিয়ার সমাজব্যবস্থার বিরুদ্ধে।