নদীয়ার নবদ্বীপের বিক্রম ভৌমিক কর্মক্ষেত্র আমেদাবাদে প্রাণ হারালো দুর্ঘটনায়

নবদ্বীপের বিক্রম ভৌমিক
নবদ্বীপের বিক্রম ভৌমিক

মলয় দে নবদ্বীপ অনেকেই আত্মীয় পরিজন ছেড়ে কর্ম সূত্রে থাকেন রাজ্যের বাইরে। কিন্তু প্রশ্ন হল কতটা নিরাপদে কাজ করেন তারা?? এ রকমই এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটলো আমেদাবাদে ট্যাঙ্ক চাপা পড়ে মৃত বিক্রম ভৌমিকের। মৃতদেহ গতকাল দুপুরে নবদ্দীপ রানীর চড়ার বাড়িতে এসে পৌঁছানোর পর কান্নায় ভেঙে পড়ে মৃতের পরিবার। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, বছর দুই আগে আমেদাবাদে এক যুবকের সঙ্গে বিক্রম ক্যাটারিং ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত হয়। পুরাতন ওই জলের ট্যাংকের পাশের বাড়িতেই বেশ কয়েকজনের সঙ্গে থাকত সে। হঠাৎই প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারনে ওই জলের ট্যাঙ্কটি ঘরের মধ্যে ভেঙে পড়ে। তাতে ঘরের মধ্যে থাকা বেশ কয়েকজন চাপা পরেযায় কয়েকজন পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও অন্যান্য কয়েকজনের সঙ্গে চাপা পড়ে নবদ্বীপের বিক্রম ভৌমিক। জখম অবস্থায় ধ্বংসস্তূপ থেকে তাকে উদ্ধার করে আমেদাবাদের একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, চিকিৎসা চলাকালীন মৃত্যু হয় বিক্রমের। মৃতের বাবা বিশ্বনাথ ভৌমিক জানান, গতবছর দুর্গাপুজোর সময় শেষবারের জন্য বাড়িতে এসেছিল বিক্রম। সংসারের একমাত্র উপার্জনশীল ছিল সে। বাবা বিশ্বনাথ ভৌমিক একটি হোটেলে কাজ করেন। তিনি জানান বাড়িতে বলে গেছিল এবার ফিরে এসে বাড়ি ঘর তৈরির কাজে হাত দেবেন। ওর সেই স্বপ্ন আর পূরণ হল না। বিক্রমের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকায় নেমে এসেছে গভীর শোকের ছায়া। পরিবারের একমাত্র সম্বল ছিল ছেলে বিক্রম, তার মৃত্যুতে বড়ই অসহায় এখন ওই পরিবার। দুবেলা দুমুঠো অন্ন জোগাড় করার মত পরিস্থিতি কারোর নেই এমনটাই বলছে এলাকাবাসী।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!