ওয়েব ডিজাইনের নানা খুঁটিনাটি

ওয়েব ডিজাইনের নানা খুঁটিনাটি

ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসগুলোতে ওয়েব ডিজাইন কাজের চাহিদা রয়েছে। news bengali news আর তাই ফ্রিল্যান্সিংয়ের ক্ষেত্রে যাঁরা একেবারে নতুন, তাঁরা ভালোভাবে ওয়েব ডিজাইন প্রশিক্ষণ নিয়ে ক্যারিয়ার গড়তে পারেন। আজ, ইন্টারনেট এবং এর ব্যবহার সবখানেই হচ্ছে এবং এর ব্যবহার দিনের পর দিন বেড়েই যাচ্ছে। এক্ষেত্রে, সব রকমের ছোট বড়ো কোম্পানি, ফার্ম বা বেশির ভাগ ব্যবসা, অনলাইন ইন্টারনেটে তাদের ব্যবসার প্রচার বা মার্কেটিং করার জন্য একটি হলেও ওয়েবসাইট (website) চালু করছেন।

একটি, ওয়েবসাইট জেকেও যেকোনো উদ্দেশ্যে বানানোর কথা ভাবতে পারে। সেই উদ্দেশ্য, online marketing হতে পারে, product promotion, online services প্রদান করার জন্য, customer এর সাথে যোগাযোগ করার জন্য, ডিজিটাল মার্কেটিং এর জন্য বা অন্য যেকোনো উদ্দেশ্যে একটি ওয়েবসাইট বানানো যেতে পারে। এখন, এই বিভিন্ন ধরণের ওয়েবসাইট যারা ডিজাইন করেন এবং তৈরি করেন, তাদের ওয়েব ডিজাইনার (web designer) বলা হয়।

এবং, ওয়েব ডিজাইনাররা যেসব দক্ষতা (skills), অভিজ্ঞতা বা প্রক্রিয়া ব্যবহার করে একটি ওয়েবসাইট ডিজাইন করেন বা তৈরি করেন, সেটাই হলো ওয়েব ডিজাইনিং। সোজা ভাবে বললে, একটি ওয়েবসাইট সুন্দর ভাবে ডিজাইন বা তৈরি করার প্রক্রিয়াকেই ওয়েব ডিজাইন বলা হয়। এবং, বিভিন্ন কোম্পানি বা ব্যবসার ওয়েবসাইট গুলি ডিজাইন করা, তৈরি করা বা বজায় রাখার (maintain) জন্য web designing এর দক্ষতা থাকা web designer দেড় প্রয়োজন। এখন, আপনিও যদি, “ওয়েব ডিজাইন কিভাবে শিখব” এবেপারে ভাবছেন, তাহলে চিন্তা করবেননা।

আমি নিচে, ওয়েব ডিজাইনিং এ কি কি শিখতে হবে, শিখতে কত দিন লাগবে, কিভাবে ওয়েব ডিজাইন শিখব এবং এই ক্যারিয়ার কতটা লাভ জনক সেই সব বেপারে বলবো। Web designing শেখার জন্যে আপনার কোনো বিশেষ qualifications এর প্রয়োজন নেই। আপনার যদি এই ক্ষেত্রে অল্প হলেও ইচ্ছে বা রুচি রয়েছে, তাহলে আপনি বিভিন্ন কোর্সের মাধ্যমে web designing শিখতে পারবেন। ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য অনেকেই প্রশিক্ষণকেন্দ্রের খোঁজ করেন। তবে শুরুতেই কোথাও যাওয়ার প্রয়োজন নেই। নিজে আগে বেসিক বিষয়গুলো আয়ত্ত করতে হবে। চাইলে গুগল এবং ইউটিউবের বিভিন্ন কনটেন্ট বা চ্যানেলের সাহায্য নিতে পারেন। 

ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে হলে প্রথমে জানতে হবে, কী কী শিখতে হবে। মনে রাখতে হবে, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, অর্থাৎ ওয়েব প্রোগ্রামিং শেখার প্রথম ধাপই হলো ওয়েব ডিজাইন। এ জন্য আপনাকে প্রথমেই শিখতে হবে এইচটিএমএল (হাইপার টেক্সট মার্কআপ ল্যাঙ্গুয়েজ) এবং সিএসএস (ক্যাসক্যাডিং স্টাইল শিট)। কারণ, একটি ওয়েবসাইটের মূল কাঠামো তৈরিই হয় এইচটিএমএলের মাধ্যমে। তাই এইচটিএমএলে থাকা বিভিন্ন ট্যাগের ব্যবহার জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। 

অপর দিকে সিএসএস হলো ওয়েব পেজের বিভিন্ন উপাদানের গঠন, আকার, আকৃতি, রং, অবস্থান, গতিশীলতা ইত্যাদি নির্ধারণ করার পদ্ধতি। অর্থাৎ একটি ওয়েব পেজের নকশা করার পাশাপাশি সেটি প্রদর্শনের উপযোগী করে তোলে সিএসএস। একটি উদাহরণ দিয়ে বিষয়টি বুঝিয়ে বলা যাক। মনে করেন, আপনি একটি কম্পিউটার কিনবেন। এ জন্য প্রথমেই ভাবলেন, কম্পিউটার কেনার আগে টেবিল আর চেয়ারও কিনতে হবে। চেয়ার–টেবিল কেনার এই পরিকল্পনাকে এইচটিএমএলের সঙ্গে তুলনা করা যেতে পারে। অপর দিকে টেবিলে কম্পিউটার, মাউস, কি–বোর্ড বা সাউন্ড বক্স সুন্দর করে সাজিয়ে রাখার বিষয়টিই মূলত সিএসএস। 

  Photoshop basics : হে, আপনার ফটোশপের বেসিক কিছু জিনিস শিখতে হবে। কারণ, একটি ওয়েবসাইট বানানোর আগেই, আমাদের তার একটি ধারণা বা ডিজাইন ফটোশপে বানিয়ে নিতে হবে। এতে, ওয়েবসাইট বানানোতে পরে অনেক সুবিধে হবে।

HTML : HTML মানে “Hyper Text Markup Language” যে এক রকমের coding language বা ভাষা। এ হলো একটি markup language যেটা ব্যবহার করে web pages (website) বানানো হয়।  HTML শিক্ষা অনেক সহজ এবং এর জ্ঞান  পর আপনি একটি সাধারণ web page অবশই বানাতে পারবেন।

CSS : CSS মানে হলো Cascading style sheet যে এক রকমের coding language বা ভাষা। HTML আমাদের ওয়েবসাইটকে গঠন (structure) দেয়ার কাজ করে। এবং, CSS আমাদের HTML দ্বারা তৈরি ওয়েব পেজের গঠনকে style এবং design দেয়ার কাজ করে। CSS দ্বারা একটি web page সুন্দর এবং আকর্ষণীয় বানানো যেতে পারে।

JavaScript : JavaScript এক ধরণের client side scripting language যেটা একটি ওয়েবপেজে বিভিন্ন ধরণের প্রক্রিয়া বা প্রক্রিয়া গুলি প্রভাবিত করার জন্য ব্যবহার করা হয়। একজন ভালো এবং এক্সপার্ট ওয়েব ডিজাইনারের জন্য JavaScript এর জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতা থাকা অনেক জরুরি।

এইচটিএমএলের বিভিন্ন ট্যাগের ব্যবহার এবং সিএসএসের ক্লাস ও আইডি সম্পর্কে দক্ষতা অর্জনের পর কারও সাহায্য ছাড়াই স্ট্যাটিক ওয়েব পেজ তৈরি করতে হবে। মনে রাখবেন, শুরুতে আপনার বিভিন্ন ধরনের ভুল হবেই। ভুলগুলো সমাধান করে বারবার চেষ্টা করলেই ধীরে ধীরে ভালো মানের ওয়েব পেজ তৈরি করা সম্ভব হবে।

আরো পড়ুন      জীবনী  মন্দির দর্শন  ইতিহাস  ধর্ম  জেলা শহর   শেয়ার বাজার  কালীপূজা  যোগ ব্যায়াম  আজকের রাশিফল  পুজা পাঠ  দুর্গাপুজো ব্রত কথা   মিউচুয়াল ফান্ড  বিনিয়োগ  জ্যোতিষশাস্ত্র  টোটকা  লক্ষ্মী পূজা  ভ্রমণ  বার্ষিক রাশিফল  মাসিক রাশিফল  সাপ্তাহিক রাশিফল  আজ বিশেষ  রান্নাঘর  প্রাপ্তবয়স্ক  বাংলা পঞ্জিকা