পুরুলিয়ার পুঞ্চায় দুষ্কৃতীদের গুলির আঘাতে গুরুতর জখম তৃণমূল কর্মী।

workers were injured in the killing of miscreants in Purulia.
পিন্টু সিনহা (৪২)

আজবাংলা পুরুলিয়াঃ পুরুলিয়া জেলার পুঞ্চা থানার পাড়ুই গ্রামে দুষ্কৃতীদের গুলির আঘাতে গুরুতর জখম হলেন পিন্টু সিনহা (৪২) নামে এক তৃণমূল কর্মী। স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,এদিন ভোরবেলা পাড়ুই গ্রামের বাসিন্দা তথা ওই তৃণমূল কর্মী পিন্টু সিনহা ও তার দাদা বাবলু সিনহা স্থানীয় একটি কালী মন্দিরে ছাগ বলি দিয়ে নিজের বাড়ির গেটের সামনে এসে মাংস কাটছিলেন।ঠিক সেই সময় হঠাৎ সামনের ঝোপ থেকে কেউ বা কারা পিন্টু সিনহার গায়ে গুলি চালায়।তারপরেই সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন পিন্টু।গুলির আওয়াজ শুনে স্থানীয় বাসিন্দারা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন।কিন্তু কে এই গুলি চালালো তা কেউই বুঝে উঠতে পারেনি।সঙ্গে সঙ্গে এলাকার বাসিন্দারা এদিক সেদিক খোঁজাখুঁজি শুরু করে।কিন্তু কাউকে দেখতে পাননি তারা।ঘটনার পর ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়।খবর দেওয়া হয় স্থানীয় থানা পুঞ্চায়। স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় পুলিশ আহত অবস্থায় পিন্টু সিনহাকে প্রথমে পুঞ্চা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এবং পরে পুরুলিয়া দেবেন মাহাতো সদর হাসপাতালে ভর্তি করান।কিন্তু সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে চিকিৎসকেরা তাকে বাঁকুড়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন।পরে সেখান থেকেও পিন্টু সিনহাকে স্থানান্তরিত করা হয় কলকাতা পিজিতে। তবে পাঁড়ুই গ্রামে এরকম গুলি চালানর ঘটনায় ইতিমধ্যেই নানা প্রশ্ন উঠেছে।স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যেই কেউ এই গুলি চালানোর ঘটনার সঙ্গে যুক্ত বলে দাবি গ্রামবাসীদের।আবার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রামবাসীদের কয়েকে জানান পাঁড়ুই গ্রামে বহু দিন ধরেই পিস্তল বন্ধুক আছে এবং খুব নিকটেরে লোকজন এই ঘটনা ঘটিয়েছে।ওই গ্রামেরেই বাসিন্দা তৃনমূল নেতা ধনঞ্জয় ঘোষ জানান পিন্টু আমাদের দলের সক্রিয় কর্মী।কোনও রকম ঝুটঝামেলার সঙ্গে থাকেনা।ও সুস্থ হলে আসল রহস্য প্রকাশ্যে আসবে। অপরদিকে আহতের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় পরিবারের সদস্যদের মধ্যে একটা চাপা আতঙ্কের ছাপ।